kalerkantho


আজ সরস্বতীপূজা

রাজধানীর অনেক স্থানে ব্যাপক প্রস্তুতি

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২২ জানুয়ারি, ২০১৮ ০১:১৯



আজ সরস্বতীপূজা

আজ সোমবার হিন্দু সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতীপূজা। শাস্ত্র মতে, প্রতিবছর মাঘ মাসে শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথিতে শ্বেতশুভ্র কল্যাণময়ী বিদ্যাদেবীর বন্দনা করা হয়। ঐশ্বর্যদায়িনী, বুদ্ধিদায়িনী, জ্ঞানদায়িনী, সিদ্ধিদায়িনী, মোক্ষদায়িনী ও শক্তির আধার হিসেবে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা এই দেবীর আরাধনা করে। সরস্বতী দেবী শ্বেতশুভ্র বসনা। দেবীর এক হাতে বেদ, অন্য হাতে বীণা। এ জন্য তাঁকে বীণাপানিও বলা হয়। সনাতন ধর্মীয় বিশ্বাস অনুযায়ী, জ্ঞান ও বিদ্যার দেবী আশীর্বাদের মাধ্যমে মানুষের চেতনাকে উদ্দীপ্ত করতে প্রতিবছর আবির্ভূত হন ভক্তদের মাঝে। শিক্ষার্থীরা এই পূজায় বেশি মনোযোগী হয়।

দিনটিতে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঘরে ঘরে সরস্বতীপূজা অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকায় বিভিন্ন এলাকা ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পূজার আয়োজন হলেও সরস্বতীপূজার প্রধান কেন্দ্র হয়ে উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল মাঠ। এবারও পূজা উপলক্ষে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। জগন্নাথ হল ঘিরেও রয়েছে নানা আয়োজন। কেন্দ্রীয় উপাসনালয় ও চারুকলার মণ্ডপসহ এ বছর হলের মাঠে প্রায় ৬৩টি মণ্ডপে পূজা অনুষ্ঠিত হবে। এতে অংশ নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। শুধু হিন্দু শিক্ষার্থীরাই নয়, অন্য ধর্মের শিক্ষার্থীরাও এই আয়োজনে সহযোগিতা করেছে। জগন্নাথ হলে পূজামণ্ডপগুলোর মূল আকর্ষণ চারুকলার শিক্ষার্থীদের নির্মিত প্রতিমা। এ বছর হলের পুকুরের মাঝখানে নির্মিত হয়েছে প্রায় ৪৫ ফুট উচ্চতার প্রতিমা।

সরস্বতীপূজা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। বাণীতে তাঁরা দেশের সনাতন ধর্মাবলম্বী সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা জানান। শুভেচ্ছা জানিয়েছেন বিরোধীদলীয় নেতা রওশন এরশাদও। এ ছাড়া বাংলাদেশ পূজা উদ্‌যাপন পরিষদ, মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটি, ছাত্র যুব ঐক্য পরিষদ ও মহিলা ঐক্য পরিষদের নেতারা ধর্ম-বর্ণ-নির্বিশেষে দেশবাসীকে সরস্বতীপূজার শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

পূজা উপলক্ষে রাজধানীর রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশনে আজ দেবীর আরাধনা হবে। এ প্রসঙ্গে ঢাকা রামকৃষ্ণ মঠ ও রামকৃষ্ণ মিশনের স্বামী গুরুসেবানন্দ বলেন, জ্যোতিষশাস্ত্রে পাঁচ ধরনের সিদ্ধান্ত আছে। বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত এর অন্যতম। বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকা মতে আজ সকাল ৮টায়ই শুক্লপক্ষের পঞ্চমী তিথি শুরু হবে এবং থাকবে বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত। রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশন বিশুদ্ধ সিদ্ধান্ত পঞ্জিকা অনুসরণ করেই পূজানুষ্ঠান করে থাকে। সেখানে আজ সকাল সাড়ে ৭টায় পূজা শুরু হবে। সকাল ৯টায় হাতেখড়ি, দুপুর সাড়ে ১২টায় পুষ্পাঞ্জলি, ১২টা ১৫ মিনিটে হোম, ১টায় ভক্তদের মাঝে প্রসাদ বিতরণ করা হবে। সন্ধ্যায় আরাত্রিক ও ভজন সংগীত পরিবেশন করবেন শিল্পীরা। মঙ্গলবারও রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনে দেবীর পূজা অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৯টায় পূজা ও পুষ্পাঞ্জলি, ৯টা ৪০ মিনিটে দর্পণ বিসর্জন এবং সন্ধ্যায় আরাত্রিকের পর প্রতিমা বিসর্জন।

জগন্নাথ হলের পূজা শুরু হবে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে। ১০টায় অঞ্জলি প্রদান, সন্ধ্যায় আরতি অনুষ্ঠান। দ্বিতীয় দিন মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টায় অনুষ্ঠিত হবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনে মহানগর সর্বজনীন পূজা কমিটির উদ্যোগে সরস্বতীপূজার আয়োজন করা হয়েছে। সেখানেও রয়েছে পুষ্পাঞ্জলি, প্রসাদ বিতরণ, সন্ধ্যায় আরতি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

এ ছাড়া সকাল ৮টায় পূজা শুরু হবে মানিক মিয়া এভিনিউয়ের পাশে রাজধানী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে। জাতীয় সংসদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এই পূজার পুষ্পাঞ্জলি ও প্রসাদ বিতরণ হবে সকাল ১০টায়। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে সন্ধ্যায় আরতি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন রয়েছে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।



মন্তব্য