kalerkantho


বিএনপির প্রতি হাছান মাহমুদ

আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সংবিধানকে সমুন্নত রাখুন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৮:৩২



আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে সংবিধানকে সমুন্নত রাখুন

ফাইল ছবি

বর্তমান সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে দেশের সংবিধানকে সমুন্নত রাখার জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা রিপোটার্স ইউনিটি মিলনায়তনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানান।

আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র হাছান মাহমুদ বলেন, বিশ্বের অন্যান্য সংসদীয় দেশের মত আমাদের দেশেও নির্বাচন কমিশনের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পর নির্বাচনের সঙ্গে জড়িত সকল কিছু নির্বাচন কমিশনের অধীনে চলে যায়।

হাছান মাহমুদ বলেন, সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন চলাকালে সরকার শুধুমাত্র দৈনন্দিন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে। এ সময়ে সরকার কোনো নীতি নির্ধারণী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারে না।

আগামী নির্বাচনে বিএনপির অংশ নেওয়ার বিষয়ে খালেদা জিয়ার ঘোষণাকে অভিনন্দন জানিয়ে ড. হাছান বলেন, নির্বাচনে অংশ নেওয়ার এ ঘোষণার মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে গত নির্বাচনে অংশ না নিয়ে তারা ভুল করেছিল।

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করি, আগামী নির্বাচনে বিএনপি বর্তমান সরকারের অধীনে অংশগ্রহণ করে দেশের সংবিধানকে সমুন্নত রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। গত নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে তারা যে ভুল করেছিল আগামী নির্বাচনে আর সে ভুল করবে না।’

বন ও পরিবেশ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ড. হাছান বিএনপিকে সতর্ক করে বলেন, বিগত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মত নির্বাচন প্রতিহত করার জন্য নাশকতা করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করার চেষ্ঠা করবেন না। কারণ ঘোলা পানিতে মাছ বাঁচতে পারে না। আর বিএনপি সে পরিবেশের শিকার হবে।

খালেদা জিয়ার টুইট বার্তার বিষয়ে তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী যে টুইটবার্তা পাঠান সেটা তিনি নিজে লেখেন কিনা, সে বিষয়ে সন্দেহ রয়েছে। অনেকে ধারণা করেন, অন্য কেউ তার টুইটবার্তা লিখে দেন। আর তাঁর টুইটবার্তা দেখে টুইটারের প্রতিষ্ঠাতারাও মনে হয় হাসাহাসি করেন।

ড. হাছান বলেন, বঙ্গবন্ধু ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি শুধু পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েই দেশে ফিরে আসেননি, তিনি ফাঁসির কাষ্ঠ থেকেও মুক্তি পেয়েছিলেন।

বঙ্গবন্ধু দেশে ফিরে আসার মাধ্যমে বিজয়ের আনন্দ পূর্ণতা লাভ করেছিল বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

জোটের সহ-সভাপতি আব্দুল মতিন ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যর মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সুর্প্রীম কোর্টের সাবেক বিচারপতি সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ ও বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক ফাল্পুনী হামিদ।



মন্তব্য