kalerkantho


শ্রম মন্ত্রণালয়ে মতাবিনিময় সভা

নূন্যতম মজুরী বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি হিসেবে কামরুল আনামের নাম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ জানুয়ারি, ২০১৮ ২২:৩৬



নূন্যতম মজুরী বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি হিসেবে কামরুল আনামের নাম

নুন্যতম মজুরী বোর্ডের শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি হিসেবে বাংলাদেশ গার্মেন্টস টেক্সটাইল শ্রমিক লীগের সভাপতি জেডএম কামরুল আনামের নাম অনানুষ্ঠানিকভাবে প্রস্তাব করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার শ্রম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত তৈরি পোশাক খাতের শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ প্রস্তাবের কথা জানায় শ্রমিক সংগঠনের নেতারা। তবে শ্রম বিধিকেও অনুসরণ করারও আহ্বান জানান তারা।

শ্রম মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী মো. মজিবুল হক চুন্নু। এতে  প্রায় অর্ধশতাধিক শ্রমিক নেতা উপস্থিত ছিলেন বলে বৈঠক সূত্রে জানা যায়। শ্রম প্রতিমন্ত্রী শ্রমিকদের কল্যাণে তার মন্ত্রনালয়  কি কি কাজ করেন এসব তথ্যও তুলে ধরেন। 

নুন্যতম মজুরী বোর্ডে শ্রমিক প্রতিনিধি মনোনয়ন প্রসঙ্গ এলে তিনি বলেন, শ্রমিকদের অনেক ফেডারেশন। তাই তার পক্ষে এককভাবে শ্রমিক প্রতিনিধি মনোনয়ন করা কঠিন। তবে নূন্যতম মজুরী বোর্ডে শ্রমিকদের প্রতিনিধি নির্বাচনে বাংলাদেশ শ্রম বিধিমালা মেনে তিনি মনোনয়ন দেওয়া হবে বলে শ্রমিক নেতাদের আশ্বস্থ করেন। 

শ্রমিক নেতারা এ সময় শ্রম প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্যে সমর্থন জানিয়ে তারা শ্রম বিধি মালা ১২১ মোতাবেক শ্রমিক প্রতিনিধি মনোনয়ের জন্য তাকে পরামর্শ দেন। শ্রমিক নেতারা বলেন, শ্রম বিধান অনুসারে শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি মনোনয়ন করতে হলে তৈরি পোশাক খাতে সর্বাধিক ফেডারেশন প্রতিনিধিত্ব করে এমন ফেডারেশন থেকে প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া। তবে পোশাক খাত থেকে প্রতিনিধি পাওয়া না গেলে, সরকার জাতীয় ফেডারেশন থেকে প্রতিনিধি মনোনয়ন দিতে পারে। তাই ১৬ ফেডারেশনের পক্ষে বেশীরভাগ শ্রমিক নেতারা ইন্ডাস্ট্রি অল বাংলাদেশ (আইবিসি) পক্ষ থেকে মনোনয়ন দেওয়া যেতে পারে বলে মতামত দেন। 

গার্মেন্টস খাতের শ্রমিকদের জন্য নতুন মজুরি বোর্ড গঠনের লক্ষ্যে সরকার সব ধরনের প্রস্তুতি নিলেও শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি ঠিক করা নিয়ে জটিলতা তৈরি হয়েছে। শুরুতে জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদকে শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি হিসেবে প্রস্তাব করা হলেও বেশিরভাগ শ্রমিক সংগঠন আপত্তি দেওয়ায় এ জটিলতা তৈরি হয়। এ কারণে আটকে আছে মজুরি বোর্ড গঠনের ঘোষণা। 

এদিকে গার্মেন্টস মালিকপক্ষ ইতিমধ্যে তাদের নামের প্রস্তাবও মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে। এছাড়া মালিক ও শ্রমিক পক্ষের দুইজন স্থায়ী প্রতিনিধি, সরকারপক্ষের প্রতিনিধি ছাড়াও নিরপেক্ষ প্রতিনিধি রয়েছেন।

সর্বশেষ ২০১৩ সালের জুনে গঠিত মজুরি বোর্ড ওই বছরের ডিসেম্বরে গার্মেন্টস খাতের শ্রমিকদের জন্য ৫ হাজার ৩০০ টাকা সর্বনিম্ন মজুরি ঘোষণা করে। ওই বোর্ডে শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধি হিসেবে রয়েছেন জাতীয় গার্মেন্টস শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম রনি। দেশে এ খাতের শ্রমিকদের জন্য ১৯৮৪ সালে প্রথম মজুরি ঘোষণা করা হয়। ওই সময় শ্রমিকদের ন্যুনতম মোট মজুরি ছিল ৬৩০ টাকা। পরবর্তীতে ১৯৯৪ সালে ৯৩০ টাকা, ২০০৬ সালে ১ হাজার ৬৬২ টাকা, ২০১০ সালে ৩ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়।


মন্তব্য