kalerkantho


সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গৃহ করের বাইরে রাখা হয়েছে : সাঈদ খোকন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ১৯:০৫



সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গৃহ করের বাইরে রাখা হয়েছে : সাঈদ খোকন

 

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) আওতাভুক্ত সকল ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গৃহ করের বাইরে রাখা হয়েছে। তবে মসজিদের মালিকানাধীন যেসব ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেগুলোতে সর্বোচ্চ ছাড় দিয়ে কর নির্ধারণ করা হবে।

পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উপলক্ষে রাজধানীর বেইলী রোডের অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত মিলাদ মাহফিল ও ডিএসসিসির আওতাভুক্ত সকল মসজিদের ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন এসব কথা বলেন। 

সভায় কয়েকটি মসজিদের ইমাম মসজিদের গৃহ কর মওকুফ করার জন্য মেয়রের প্রতি আহ্বান জানান। 

এ সময় ডিএসসিসির আওতাভূক্ত সাড়ে ৯শ’ মসজিদের ইমাম ও মুয়াজ্জিন নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজার দর বৃদ্ধি পাওয়ায় সরকারের প্রথম শ্রেণীর কর্মকর্তাদের সমপরিমাণ ভাতা দাবি করেন। 

মেয়র পরিচ্ছন্ন নগরী গঠনে ইমাম-মুয়াজ্জিনদের সহযোগিতা কামনা করে বলেন, ‘মসজিদে বয়ান দেয়ার সময় আপনারা পরিচ্ছন্ন নগরী গড়তে মুসল্লিদের উদ্দেশে কথা বলবেন। এই নগর সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন করে গড়ে তুলতে আপনাদের সহযোগিতা প্রয়োজন।’

তিনি বলেন, হাজারো সমস্যায় জর্জরিত এ শহর। এই শহরে আগে শতকরা ১০ ভাগ সড়ক বাতি জ্বলত না। এখন সারা ঢাকা এলইডি বাতির আলোতে আলোকিত। রাস্তাঘাট অনেক উন্নত। মাত্র দুই বছরের প্রচেষ্টা নগরীর এ পরিবর্তন এসেছে।

মেয়র বলেন, ‘আমি বাবার হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছি। আমার বাবা সবসময় আলেম-ওলামাদের সম্মান ও শ্রদ্ধা করতেন। বাসায় ভালো কিছু তৈরি হলে পাশের মসজিদের ইমাম ও এতিমখানার জন্য পাঠিয়ে দিতেন। আপনারা বাবার জন্য দোয়া করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। আল্লাহ যাতে তাকে দীর্ঘায়ু দান করেন।’

ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মো. বিলাল, সচিব সাহাবুদ্দিন খান, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা মো. ইউসুফ আলী সরদার, প্রধান প্রকৌশলী ফরাজী শাহাবউদ্দীন আহমেদ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমোডর মো. শফিকুল আলম, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বিগ্রেডিয়ার জেনারেল ডা. শেখ সালাহউদ্দীন এ সময় উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য