kalerkantho


পিইসির প্রশ্নে অর্ধশত ভুল করা সেই কর্মকর্তার খোঁজ মিলেছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ নভেম্বর, ২০১৭ ১২:৩৮



পিইসির প্রশ্নে অর্ধশত ভুল করা সেই কর্মকর্তার খোঁজ মিলেছে

ফাইল ফটো

একটি প্রশ্নেই অর্ধশত ভুল করেছিলেন তিনি। এরপর সে কর্মকর্তাকে বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে।

কিন্তু কোথায় সেই কর্মকর্তা তা জানা যাচ্ছিল না। অবশেষে মো. আব্দুল মান্নান মিয়া নামে সে কর্মকর্তার সন্ধান মিলেছে।

বরখাস্তের আগের আদেশ সংশোধন করে শনিবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, প্রশ্নে ভুলের জন্য দায়ী মো. আব্দুল মান্নান মিয়া গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের সাবেক ইন্সট্রাক্টর। বর্তমানে তিনি প্রেষণে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টরের দায়িত্বে আছেন।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীর সিলেট অঞ্চলের ইংরেজি ভার্সনের বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচিতি বিষয়ের পরীক্ষার প্রশ্নপত্রে অন্তত অর্ধশত ভুল ধরা পড়ে। এরপর ব্যাপক ক্ষোভ ও সমালোচনার মুখে তড়িঘড়ি আব্দুল মান্নানকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ বৃহস্পতিবার দিয়েছিল প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই আদেশে মান্নানকে গাইবান্ধার সাদুল্লাহপুরের সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে দেখানো হয়েছিল।  

কিন্তু তখন খোঁজ নিয়ে গাইবান্ধায় মান্নান নামে কোনো শিক্ষা কর্মকর্তাকে পাওয়া যায়নি।

চলমান প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় শিক্ষার্থীরা চলমান প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষায় শিক্ষার্থীরা
ওই কর্মকর্তা সম্পর্কে প্রকৃত তথ্য জানতে বৃহস্পতিবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এবং জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমির (নেপ) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কেউ এ নিয়ে কথা বলেননি।

এরপর বৃহস্পতিবার বিকালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান ফিজার হঠাৎ করেই নেপে পরিদর্শনে যান। তার দুদিন বাদেই বরখাস্তের আদেশ সংশোধন হল।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছিলেন, জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (নেপ) প্রাথমিক সমাপনীর প্রশ্নপত্র প্রণয়ন করে। সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচিতি বিষয়ের ইংরেজি ভার্সনের প্রশ্নটি বাংলা থেকে ইংরেজিতে অনুবাদের দায়িত্বে ছিলেন বলে নেপ থেকে মন্ত্রণালয়কে জানানো হলে তাকে বরখাস্ত করা হয়।

সূত্র : বিডিনিউজ


মন্তব্য