kalerkantho


ডিএসসিসি এলাকায় হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি : সাঈদ খোকন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৬ নভেম্বর, ২০১৭ ১৯:৪৮



ডিএসসিসি এলাকায় হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি : সাঈদ খোকন

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় কোনো হোল্ডিং ট্যাক্স বাড়ানো হয়নি বলে জানিয়েছেন মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।  আজ নগর ভবনে এক অনুষ্ঠানে হোল্ডিং ট্যাক্স বৃদ্ধি প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মেয়র এ কথা জানান।

 

সাঈদ খোকন বলেন, আগেও হোল্ডিং ট্যাক্স শতকরা ১২ ভাগ ছিল এখনও তাই রয়েছে। ২৯ বছর ধরে কর এ্যাসেসমেন্ট (মূল্যায়ন) করা যায়নি। তাই নতুন ও পুরাতন ফ্লাট বা ভবনের গৃহকরের মধ্যে বিদ্যমান অসমতা দূর করে সমন্বয় করা হচ্ছে মাত্র।

সমতাভিত্তিক সমাজ ও নগরী গড়ে তোলার জন্য এটি জরুরি উল্লেখ করে তিনি বলেন, ধার্যকৃত গৃহকরও বিভিন্ন প্রক্রিয়ায় শতকরা ৪০ ভাগ কমিয়ে আনার সুযোগ রয়েছে। কোন নাগরিক এতে সংক্ষুব্দ হলে বা দুর্ভোগের শিকার হলে যৌক্তিক যে কোন বিষয় আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে সমাধানের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

ঢাকা দক্ষিণের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন আজ ডিজিটাল পদ্ধতিতে ঘরে বসেই ই-ট্রেড লাইসেন্স ও ই-হোল্ডিং ট্যাক্স প্রদান কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।  

এসময় তিনি শাহ মোহায়মেন হজ্ব এন্ড ট্রাভেলস লিঃ এর মালিক সৈয়দ আব্দুল মোদাচ্ছের-এর হাতে তাৎক্ষনিকভাবে ই-ট্রেড লাইসেন্স তুলে দেন।  

ডিএসসিসি’র ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সংস্থার সচিব শাহাবুদ্দিন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মহাপরিচালক (প্রশাসন) ও এটুআই প্রকল্পের পরিচালক কবির বিন আনোয়ার, ডিএসসিসিতে এ প্রকল্পের পরিচালক আব্দুল খালেক, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সরদার, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ সিরাজুল ইসলাম, সিস্টেম এনালিষ্ট আবু তৈয়ব রোকনসহ অন্যান্য বিভাগীয় প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।  

ই-ট্রেড লাইসেন্স এবং ই-হোল্ডিং ট্যাক্স চালুর ফলে নাগরিকদের দুর্ভোগ বা ভোগান্তি নিরসন হবে উল্লেখ করে মেয়র বলেন, এখন থেকে নাগরিকরা ঘরে বসেই ব্যবসা পরিচালনাসহ গৃহকর পরিশোধ করতে পারবেন।

এতে তাদের মূল্যবান সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে, কর্পোরেশনের কাজেও স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠিত হবে।  

মেয়র বলেন, ইতোমধ্যে কর্পোরেশনে ই-টেন্ডারিং চালু করা হয়েছে এবং কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কর্মস্থলে উপস্থিতি নিশ্চিতকরণে ডিজিটাল এ্যাটেনডেন্স চালু করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় আজ ই-ট্রেড লাইসেন্স ও ই-হোল্ডিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে।  

ডিএসসিসি’র এক লাখ ৮২ হাজার ট্রেড লাইসেন্স এবং এক লাখ ৬৫ হাজার হোল্ডিং রয়েছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়।


মন্তব্য