kalerkantho


কবি শামসুর রাহমানের ৮৯তম জন্মদিন কাল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৭ ১৭:০৩



কবি শামসুর রাহমানের ৮৯তম জন্মদিন কাল

বাংলা সাহিত্যের অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি শামসুর রাহমানের ৮৯ তম জন্মদিন আগামীকাল সোমবার।  

কবির জন্মদিন স্মরণে বাংলা একাডেমিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আলোচনা সভা, কবির কবিতা থেকে আবৃত্তি,নিবেদিত কবিতা পাঠ।  

কবি শামসুর রাহমান একাধারে কবি, সাংবাদিক, প্রাবন্ধিক, উপন্যাসিক, কলামিস্ট , অনুবাদক ও গীতিকার। পঞ্চাশ দশক থেকে শুরু করে একাধারে কবি প্রায় ছয় দশকেরও বেশি সময়ব্যাপী বিরতিহীনভাবে সাহিত্য-সাংবাদিকতা ও সংস্কৃতিক্ষেত্রে কাজ করেন। তাকে বাংলা সাহিত্যে ‘স্বাধীনতার কবি’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়।  

কবিতায় তিনি স্বাধীনতার মানসে ব্যাপক কাজ করেন। মৌলবাদ, ধর্মান্ধতারিরোধী বিষয়েও প্রভূত স্বাক্ষর রাখেন। রয়েছে প্রেম, দ্রোহ ও বিশ্বজনীনতা। যা আজও সকল বয়সের মানুষকে উজ্জীবিত করে। বাঙালির স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে লেখা কবির অসংখ্য কবিতা ব্যাপকভাবে যোদ্ধাসহ সর্বস্তরের মানুষকে উৎসাহিত করেছে।

তিনি বাঙালীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ কবিদের একজন।  

কবি শামসুর রাহমান ১৯২৯ সালের ২৩ অক্টোবর ঢাকার মাহুতটুলিতে নিজ বাড়িতে জন্মগ্রহণ করেন। তাদের পৈত্রিক ভিটা নরসিংদীর পাহাতলী গ্রামে। তিনি ২০০৬ সালের ১৭ আগস্ট ঢাকায় ইন্তেকাল করেন।  

ঢাকা কলেজে অধ্যয়নকালে আঠার বছর বয়সে তিনি লেখা শুরু করেন। তার প্রথম কবিতা প্রকাশ পায় ‘সাপ্তাহিক সোনার বাংলা ’ পত্রিকায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজী সাহিত্যে স্নাতকোত্তর করার পর কবি ১৯৫৭ সালে ডেইলি মর্নিং সান পত্রিকায় সহযোগী সম্পাদক হিসেবে কর্ম ও পেশাগত জীবন শুরু করেন। পরে পাকিস্তান রেডিওতে দেড় বছর চাকুরী করেন। দেশ স্বাধীনের পর দৈনিক বাংলা পত্রিকায় যোগ দেন। এক পর্যায়ে এই পত্রিকার প্রধান সম্পাদকসহ সাপ্তাহিক বিচিত্রার সম্পাদক ছিলেন। পরবর্তীতে মূলধারা, অধূনা নামে দুটি সাহিত্য পত্রিকা সম্পাদনা করেন।  

কবির প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘প্রথম গান দ্বিতীয় মৃত্যুর আগে’ প্রকাশ পায় ১৯৬০ সালে। দ্বিতীয় কাব্যগ্রন্থ রুদ্র করোটিতে (১৯৬৩ ) এবং পরবর্তীতে বিধ্বস্থ নীলিমা (১৯৬৭), নিরালোকে দিব্যরত (১৯৬৮), নিজ বাসভূমে ( ১৯৭০), বন্দি শিবির থেকে (১৯৭২)সহ কবির প্রকাশিত কাব্যগ্রস্ত ৪৮টি, কাব্য সমগ্র ১০, উপন্যাস ৪, গল্প সমগ্র ২, কলাম ২, অনুবাদ কবিতা ৫, অনুবাদ নাটক ২টি, জীবনী ১, শিশুতোষ ১০সহ মোট ৯৮টি পুস্তক প্রকাশ পায়। আদমজী সাহিত্য পুরস্কার, বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার, একুশে পদক, স্বাদীনতা দিবস পদক, ভারতের আনন্দ পুরস্কারসহ বেশকিছু পুরস্কার কবি লাভ করেন।  

কবির জন্মদিন উপলক্ষে বাংলা একাডেমি আগামীকাল সোমবার বিকেল চারটায় ‘শামসুর রাহমানের কবিতার দেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। একাডেমির কবি শামসুর রাহমান মিলনায়তনে আলোচনা সভায় প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. তারেক রেজা। আলোচনায় অংশ নেবেন অধ্যাপক বেগম আখতার কামাল ও ড. অনু হোসেন। সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।  

এ ছাড়াও শ্রাবন প্রকাশনীর সহযোগী সংগঠন বইনিউজ কবি শামসুর রাহমানের ৮৯তম জন্মদিন উপলক্ষে আগামীকাল সোমবার “কবিতায় শামসুর রাহমান’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। এতে কবির কবিতা থেকে আবৃত্তি এবং বিভিন্ন কবি নিবেদিত কবিতা পাঠ করবেন। জাতীয় জাদুঘরে কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে বিকেল পাঁচটায় এই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা।  

কবি হাবিবুল্লাহ সিরাজী বাসসকে বলেন, শামসুর রাহমান বাঙালীর অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি। তিনি নগরে বাস করলেও শুধু নাগরিক কবি ছিলেন না, ছিলেন জনতার কবি। তিনি স্বাধীনতার কবি।  

তিনি বলেন, কবি শামসুর রাহমানের প্রতি সেদিনই আমরা সঠিক শ্রদ্ধা জানাতে পারব যেদিন বাংলার মাটি থেকে চিরতরে মৌলবাদ ও জঙ্গিবাদ নির্মূল এবং যুদ্ধাপরাধীদের বিচার সম্পন্ন করে ঘোষিত রায় কার্যকর করতে পারব।


মন্তব্য