kalerkantho


একাত্তরের গেরিলা চুল্লু সমাহিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ অক্টোবর, ২০১৭ ০৬:৪২



একাত্তরের গেরিলা চুল্লু সমাহিত

মুক্তিযুদ্ধের গেরিলা ক্র্যাক প্লাটুনের সদস্য আবুল মাসুদ সাদেক চুল্লুকে গতকাল বুধবার রাষ্ট্রীয় সম্মান জানিয়ে বনানীতে সমাহিত করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা আবুল মাসুদ সাদেক সোমবার বিকালে ঢাকার বনানীতে নিজের বাসায় হূদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

সহযোদ্ধাদের কাছে চুল্লু নামে পরিচিত মাসুদ সাদেকের বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী ইয়াসমিন সাদেক, একমাত্র মেয়ে সানজানা সাদেককে রেখে গেছেন। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী সানজানার অপেক্ষায় চুল্লুর মরদেহ ইউনাইটেড হাসপাতালে রাখা হয়।  

গতকাল দুপুরে তার মরদেহ বনানী ওল্ড ডিওএইচএসের বাসায় আনা হয়। আসরের নামাজের পর বনানী ওল্ড ডিওএইচএস মসজিদে গেরিলা যোদ্ধা চুল্লুর জানাজায় অন্যদের সঙ্গে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন অংশ নেন।

জানাজা শেষে মরদেহ বনানী কবরস্থানে নেওয়া হলে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এই মুক্তিযোদ্ধার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে গার্ড অব অনার দেওয়া হয়। এরপর বিকাল সোয়া ৫টার দিকে বনানী কবরস্থানে মায়ের কবরে তাকে শায়িত করা হয়। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেকের পক্ষ থেকে তার কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়। শ্রদ্ধা ও সালাম জানান ক্র্যাক প্লাটুনে তার সহযোদ্ধারা।

একাত্তরে ঢাকায় যে তরুণদের গেরিলা হামলা পাকিস্তানী বাহিনীকে অস্বস্তিতে ফেলেছিল, সেই ক্র্যাক প্লাটুনের সদস্য ছিলেন মাসুদ সাদেক। তত্কালীন হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে তাদের বোমা হামলার ঘটনাটি ছিল আলোচিত।

ক্র্যাক প্লাটুনের সদস্য শাফি ইমাম রুমী, বদিউল আলম বদি, আব্দুল হালিম চৌধুরী জুয়েলের সঙ্গে চুল্লুও যুদ্ধের এক পর্যায়ে পাকিস্তানী বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছিলেন। তিনি বেঁচে ফিরতে পারলেও অন্যরা শহীদ হন।

মাসুদ সাদেক চুল্লু সাবেক শিক্ষামন্ত্রী এ এস এইচ কে সাদেকের ছোট ভাই এবং বর্তমান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেকের দেবর।


মন্তব্য