kalerkantho


রোহিঙ্গা ইস্যু

দক্ষিণ এশিয়ার মুসলিম দেশগুলোর জোট গঠনের প্রস্তাব

নিখিল ভদ্র    

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ২০:৫০



দক্ষিণ এশিয়ার মুসলিম দেশগুলোর জোট গঠনের প্রস্তাব

সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের অবাধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত সড়ক নির্মাণের সুপারিশ করা হলেও তা কার্যকর হয়নি। ফলে রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ বেড়েছে।

সর্বশেষ ওই সুপারিশ বাস্তবায়নের পাশাপাশি রেহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে দক্ষিণ এশিয়াসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মুসলিম দেশগুলোকে নিয়ে নতুন আঞ্চলিক জোট গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ প্রস্তাব করা হয়। সম্প্রতি জাতীয় সংসদ ভবনের অনুষ্ঠিত কমিটির ১২তম বৈঠকে এ  প্রস্তাব করেন কমিটির সদস্য বেগম মাহজাবিন খালেদ, যা কমিটি বৈঠকের কার্যবিবরণীতে উল্লেখ করা হয়েছে। কমিটির সভাপতি ডা. দিপু মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে তিনি বলেন, "দক্ষিণ এশিয়াসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মুসলিম দেশসমূহ বিশেষ করে বাংলাদেশ, ব্রুনাই, মালেশিয়া ও ইন্দোনেশিয়াকে নিয়ে আঞ্চলিক জোট গঠন করা গেলে অনেক সমস্যার দ্রুত সমাধান সম্ভব হবে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান আঞ্চলিকভাবে করা যাবে।

কমিটি সূত্র জানায়, বিভিন্ন সময় কমিটির বৈঠকে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এর আগে কমিটির এক বৈঠকে রোহিঙ্গাদের অবাধ অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের ৫৩ কিলোমিটার ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় সীমান্ত সড়ক নির্মাণের সুপারিশ করা হয়। এজন্য গৃহীত প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে পদক্ষেপ নিতে বলা হয়। কিন্তু সেই সুপারিশ বাস্তবায়নের বিষয়ে এখনও কিছু কমিটিকে জানানো হয়নি।

সূত্র আরও জানায়, নবম সংসদ চলাকালে একই কমিটির বৈঠকে বিষয়টি নিয়ে বেশ কয়েকবার আলোচনা হয়। রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে করণীয় নির্ধারণে ওই সংসদে একটি সাব কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্য সাইফুজ্জামান চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে ২০১৩ সালের ২৩ জুন গঠিত চার সদস্যের সাব কমিটি চট্টগ্রামের পুঠিয়া, টেকনাফসহ মিয়ানমার সীমান্ত এলাকা ঘুরে এসে সীমান্ত সড়ক নির্মাণসহ বেশকিছু সুপারিশ করে প্রতিবেদন জমা দেয়। মূল কমিটির বৈঠকে ওই প্রতিবেদন নিয়ে আলোচনা শেষে সুপারিশসমূহ বাস্তবায়নের প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে বলা হয়।

এ বিষয়ে কমিটির সদস্য মো. সোহরাব উদ্দিন কালের কণ্ঠকে জানান, রোহিঙ্গা সমস্যা-সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য একাধিক বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বেশকিছু সুপারিশও এসেছে। এ সমস্যা সমাধানে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মুসলিম দেশগুলোকে নিয়ে নতুন আঞ্চলিক জোট গঠনের প্রস্তাবটি বৈঠকে আলোচনা হলেও কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। সর্বশেষ সরকারের নেওয়া পদক্ষেপ আগামীতে এ সমস্যার সমাধান সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

উল্লেখ্য, বছরের পর বছর শরণার্থী শিবিরসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করছে পাঁচ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে তাদেরকে ফেরত নেওয়ার জন্য বারবার বলা হলেও মিয়ানমার সরকার সে বিষয়ে কর্ণপাত করেনি। বরং অবৈধ অনুপ্রবেশ অব্যাহত রয়েছে। সর্বশেষ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে গত ২৫ আগস্ট শুরু হওয়া সহিংসতায় রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ বেড়েছে। সহিংসতা শুরুর পর আরও পাঁচ  লক্ষাধিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো দাবি করেছে।


মন্তব্য