kalerkantho


বাংলাদেশ জনতা পার্টির (বিজেপি) আত্মপ্রকাশ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১৮:৫৭



বাংলাদেশ জনতা পার্টির (বিজেপি) আত্মপ্রকাশ

ছবি : সংগৃহীত

এবার ‘হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান আদিবাসী পার্টি’ এবং সমমনা অর্ধশতাধিক সংগঠনের উদ্যোগে নতুন রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জনতা পার্টি (বিজেপি) গঠিত হয়েছে। দলটি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেয়ারও ঘোষণা দিয়েছে।

যদিও রাজনৈতিক দল হিসেবে বিজেপির কোনও নিবন্ধন নেই। আজ বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) সংবাদ সম্মেলনে রাজনৈতিক দল গঠনের এ ঘোষণা দেয়া হয়।

হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান আদিবাসী পার্টি ছাড়াও এই দলে আছে মুক্তির আহ্বান, বাংলাদেশ সচেতন সংঘ, জাগো হিন্দু পরিষদ, আনন্দ আশ্রম, হিন্দু লীগ, সনাতন আর্য সংঘ, বাংলাদেশ বুড্ডিস্ট ফেডারেশন, বাংলাদেশ ঋষি সমপ্রদায়, বাংলাদেশ মাইনরিটি ফ্রন্ট, হিউম্যান রাইটস, হিন্দু ঐক্য জোটসহ বিভিন্ন সংগঠন।  

দলের সভাপতি ও মুখপাত্র হয়েছেন হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান আদিবাসী পার্টির সভাপতি মিঠুন চৌধুরী, আর মহাসচিব হয়েছেন দেবাশীষ সাহা। মহানগর সম্পাদক হয়েছেন দেবদুলাল সাহা, আর দলের যুব পার্টির সভাপতি আশিক ঘোষ।
 
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বিজেপি আগামী নির্বাচনে সরকার গঠন করলে অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পণ আইনের জটিলতা ও প্রধান বিচারপতিকে নিয়ে সৃষ্ট সংকট নিরসন করবে। প্রতিটি বিভাগকে প্রদেশে উন্নীত করা হবে, সংখ্যালঘুদের জন্য পৃথক মন্ত্রণালয় করা হবে, ঋণখেলাপিদের ঋণের ৮০ শতাংশ পরিশোধ না হলে নতুন ঋণ দেয়া হবে না; প্রতিটি স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে অন্য ধর্মের উপাসনালয় তৈরি করা হবে এবং দুর্গাপূজায় তিন দিনের ছুটির গেজেট প্রকাশ করা হবে।  

এটি ধর্মীয় কোনো জোট কি-না? সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের জবাবে দলটির সভাপতি ও মুখপাত্র মিঠুন চৌধুরী বলেন, এটি মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের একটি দল, বিশেষ কোনো ধর্মীয় মঞ্চ নয়।


মন্তব্য