kalerkantho


সাতসকালেই সন্ধ্যার আমেজ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ জুন, ২০১৭ ১১:৪৩



সাতসকালেই সন্ধ্যার আমেজ

'আজি অন্ধকার দিবা বৃষ্টি ঝরঝর, দুরন্ত পবন অতি, আক্রমণে তার বিদ্যুৎ দিতেছে উঁকি ছিড়ি মেঘ ভার, খরতর বক্রহাসি শূন্যে বরষিয়া। '

বর্ষাকালে বর্ষা হবে।

আকাশ কালো করে মাঠঘাট পানিতে সয়লাব হবে। আকাশ ঘন কালো করে আসবে রিমঝিম বৃষ্টি। জনপদ আর প্রকৃতি হয়ে উঠবে সবুজাভ  স্বাস্থ্যবতী। জলের জলময়তা মাখবে কদমফুলের ঘ্রাণ- ঋতুবৈচিত্র্যের আহবমান বাংলায় এটাই নিয়ম।

তাই বলে সাত সকালে ঘুম থেকে উঠে অফিস আদালতের পথে বেরিয়েই মেঘরঙা ক্ষীণ আলোর মুখোমুখি, রিকশার হুডের পর্দাকে তোয়াক্কা না করে নির্দ্বিধায় ঢুকে পড়বে বৃষ্টির ছাট, গাড়িগুলোকে চলতে হবে হেডলাইট অন করে, কাকভেজা ভিজে দৌঁড়ে উঠতে হবে অফিসের বারান্দায়- এটি কার ভালো লাগে।

ভালো না লাগলেও আজ সোমবারের সকালটি ছিল এরকমই। সকালে সূর্যদেবের ঘুম ভাঙার আগেই মেঘে চারপাশ ছেয়ে যেতে থাকে ধীরে ধীরে। ৮টা বাজতে না বাজতেই  রাজধানীতে নেমে আসে সন্ধ্যা। এর কিছুক্ষণ পরই মুষলধারে বৃষ্টি। মুহূর্তের মধ্যেই রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে হাঁটু পানি। কোথাও কোথাও তারও বেশি। সঙ্গে দুড়ুম দুড়ুম শব্দে বজ্রপাত। ফলে বেশ ভোগান্তিতেই পড়তে হয় অফিসগামী মানুষকে।

রাজধানীতে কর্মব্যস্ত মানুষকে সকালে পরিবেশ প্রতিবেশে এমন অবস্থার মুখোমুখি হতে হয়। বৃষ্টিতে থমকে যায় রাজধানীবাসীর স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। অফিসগামী নগরবাসীর দুর্ভোগ আরো বেশি। অফিস যাওয়ার পথে অনেকেই মাঝরাস্তায় বৃষ্টির কোপে পড়ে দৌড়ে আশ্রয় নেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বা বাড়ির  বারান্দা ও কার্নিশের নিচে। অনেকে অফিসে পৌঁছান বৃষ্টিতে কাকভেজা হয়ে। বৃষ্টির ছাটের তীব্রতা এত বেশি ছিলো যে ছাতা থেকেও খুব একটা রক্ষা হয়নি তাদের। বৃষ্টির সঙ্গে বাতাসের তীব্রতায় ছাতাও রক্ষা করতে পারেনি বৃষ্টির হাত থেকে।

বরাবরের মতো আজকের বৃষ্টিতেও পানি জমে গেছে অনেক সড়কে, সৃষ্টি হয়েছে জলজট। নগরীর মতিঝিল, শান্তিনগর, মালিবাগ, মৌচাক, রামপুরা, বাড্ডা, ফকিরাপুল, আরামবাগ, গুলশান, বনানী, মহাখালী, উত্তরা, শেওড়াপাড়া, কাজীপাড়া, পুরান ঢাকার বংশাল, মালিটোলা, সদরঘাট, লক্ষ্মীবাজার, কুলুটোলা, হেমেন্দ্র দাস রোড, সূত্রাপুর, কাগজিটোলা, রূপচান লেন, গেন্ডারিয়া, মিলব্যারাক, আরসিন গেটসহ আশপাশ এলাকার অলিগলি ছোটখাটো খালে পরিণত হয়। এ ছাড়া যাত্রাবাড়ী, জুরাইন, পোস্তগোলা, সায়দাবাদ, মুগদা, বাসাবো, কমলাপুর, মালিবাগ চৌধুরীপাড়া ও মধ্যবাড্ডায় পানি জমে গেছে।

একইভাবে মিরপুরের শেওড়াপাড়া, মিরপুর-১১ নম্বর, তালতলা বস্তি, আদর্শনগর আবাসিক এলাকার অনেক ঘরেও পানি উঠেছে। এ ছাড়া খিলগাঁও, মগবাজার, ফকিরাপুল, আরামবাগ, শান্তিনগর, মিরপুর, কালশী রোড, সায়েদাবাদ, তেজগাঁও, কাকরাইল, পুরান ঢাকার সূত্রাপুরে রাস্তার বেহাল অবস্থা চোখে পড়েছে। অধিকাংশ এলাকায় কাদামাটির কারণে রাস্তাঘাটে চলাচলে সৃষ্টি হয়েছে অচলাবস্থা।

সকাল ৭টায় আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজ সোমবার সারা দিন রাজধানীসহ আশপাশের এলাকায় বজ্রসহ মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাত হতে পারে। গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ১৯ দশমিক ৬ মিমি।  


মন্তব্য