kalerkantho


গত অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির অর্জন ৯৮.৮৩ ভাগ: এলজিআরডিমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ জুন, ২০১৭ ১৮:৪৭



গত অর্থবছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির অর্জন ৯৮.৮৩ ভাগ: এলজিআরডিমন্ত্রী

ফাইল ফটো

‘সরকারের স্থানীয় সরকার বিভাগ গত অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির শতকরা ৯৮ দশমিক ৮৩ ভাগ সম্পন্ন করেছে। যা মন্ত্রিপরিষদ সচিব কর্তৃক সকল বিভাগ ও মন্ত্রণালয়ের মধ্যে শ্রেষ্ঠ বলে ঘোষিত হয়েছে।

’ আজ রবিবার এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

স্থানীয় সরকার বিভাগের সভাকক্ষে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দপ্তর ও সংস্থাসমূহের সাথে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব আবদুল মালেক, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব মাফরূহা সুলতানা ও মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ বিভিন্ন অধিদপ্তর ও সংস্থা প্রধানগণ।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে সচল রাখতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সবচেয়ে বড় অংশীদার। এ মন্ত্রণালয়ের অধীনস্থ দপ্তর ও সংস্থাসমূহের কাজের উপর দেশের উন্নয়ন অনেকাংশে নির্ভর করে। এ মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত সকল প্রতিষ্ঠানকে জনগণের প্রতি দায়বদ্ধ থেকে কাজ করতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির (এপিএ) কারণে সংশ্লিষ্ট দপ্তর প্রধানগণের উপর একটি দায়বদ্ধতা বর্তায়। নিজ নিজ দপ্তরের কাজ সুচারুভাবে সম্পন্ন করে লক্ষ্য অর্জন করার চ্যালেঞ্জ তৈরি হয়।  

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এ স্বাক্ষর আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে বাস্তবায়ন করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, এপিএ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নতুন বিষয়ের উদ্ভব বা বাঁধার সম্মুখীন হলে সরকার আন্তরিকভাবে তা সমাধান করবে।

মন্ত্রী বলেন, শুধু দায়সারাভাবে কাজ সম্পন্ন করলে হবে না, জনকল্যাণকে মাথায় রেখে কাজ করতে হবে। তিনি আরও বলেন, বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি ২০১৪-১৫ সালে চালু হওয়ার পর থেকে সরকারের কার্যক্রমে গতি এসেছে। এর ফলে সকল মন্ত্রণালয় ও বিভাগে কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে।  

এলজিআরডিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন, এলজিআরডি মন্ত্রণালয় আগামী অর্থ বছরে বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তির শতকরা ৯৯ ভাগের উপর লক্ষ্য অর্জন করবে।

পরে মন্ত্রণালয়ের অধীন উভয় বিভাগের সচিব ও অধীনস্থ দপ্তর ও সংস্থার প্রধানগণ বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তিতে স্ব স্ব পক্ষে স্বাক্ষর করে।  

চুক্তিতে স্বাক্ষরকারী দপ্তরসমূহ হচ্ছে- স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি), জাতীয় স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান (এনআইএলজি), জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর (ডিপিএইচই), সকল সিটি কর্পোরেশন, সকল ওয়াসা, একটি বাড়ি একটি খামার, সকল পল্লী উন্নয়ন একাডেমী, বিআরডিবিসহ মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত অন্যান্য প্রতিষ্ঠান।


মন্তব্য