kalerkantho


পুরান ঢাকায় হোলি উৎসবের আড়ালে কী হলো?

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ মার্চ, ২০১৭ ২১:০৯



পুরান ঢাকায় হোলি উৎসবের আড়ালে কী হলো?

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের অন্যতম একটি উৎসব হোলি।   আর এই উৎসবকে ঘিরে পুরাতন ঢাকা রঙের ছোঁয়ায় মেতে ওঠে।

  আনন্দ আর উল্লাসে পালিত হয় এই দিনটি। পুরাতন ঢাকায় যুগযুগ ধরে চলে আসছে এই উৎসব। কিন্তু এবারের উৎসবে বেশকিছু অভিযোগ এসেছে সামনে। আর এ নিয়েই এখন সোশ্যাল মিডিয়া ক্ষুব্ধ।    হিন্দু ধর্মাবলম্বী ছাড়াও বিভিন্ন ধর্মের মানুষ তরুণ-তরুণী অংশ নেয় উৎসবে। কিন্তু  এবছর পুরাতন ঢাকা  হোলি উৎসবকে ঘিরে বেশকিছু উচ্ছৃঙ্খল ঘটনা ঘটেছে। বিভিন্ন টেলিভিশন ফুটেজে দেখা গেছে জোরপূর্বক অনেককেই রঙ মাখিয়ে বিব্রত করা হচ্ছে। ফলে বেকায়দায় পড়তে হয়েছে স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থী শিক্ষার্থী, চাকরিজীবীসহ অনেকেই।

আসলে কী ঘটেছিল।

একটি টেলিভিশন ফুটেজে দেখা যায় এক চাকরিজীবী নারী অফিসে যাওয়ার পথে তাকে রঙ মাখানোর চেষ্টা করে বেশকিছু যুবক।   তিনি বারবার অনুরোধ করেন যে তার অফিস রয়েছে। কিন্তু সেই অনুরোধ কানে তোলেন নি উচ্ছৃঙ্খল তরুণেরা।    তাঁকে রঙ মাখিয়ে দেয়। মেয়েটি ক্যামেরার সামনে প্রায় কান্নারত অবস্থায় বলেন, এখন তিনি অফিসে যেতে পারবেন না।   আর অফিসে যদি যেতে না পারেন তাহলে চাকরি চলে যেতে পারে, এই দায় কে নেবে?

আরেক তরুণী, ক্যামেরার সামনে কথা বলার সময় অভিযোগ করছিলেন যে তাকে জোর করে রঙ মাখিয়ে দেওয়া হয়েছে। তিনি নিষেধ করেছিলেন কিন্তু নিষেধ অমান্য করেই তাকে রঙ মাখিয়ে দেওয়া হয়। ক্যামেরার সামনে কথা বলার সময়ই এক যুবক তার মুখে জোরপূর্বক রঙ দিয়ে যায়।    

ভীড় বাড়ার সাথে সাথেই উচ্ছৃঙ্খলতা বাড়তে শুরু করে। ভীড়ের মধ্যে একটা শ্রেণি শুধু মেয়েদেরকেই টার্গেট করে রঙ মাখানো শুরু করে। এ সময় তাদের বন্ধুরা মেয়েগুলোকে বাঁচানোর চেষ্টা করলেও অনেকেই ব্যর্থ হন।   স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীদেরও রেহাই দেওয়া হচ্ছিল।   কোনো রিকশা গেলেই তাতে চড়াও হচ্ছিলেন যুবকেরা।

শাঁখারীবাজারের স্থানীয় কয়েকজন হিন্দু সম্প্রদায়ের যুবক বলেন,  তাদের এই শান্তিপূর্ণ ও স্বতঃস্ফূর্ত উতসবে বেশকিছু বহিরাগত ও সুযোগ সন্ধানী যুবক প্রবেশ করে এই ধরনের কাজ করছে এবং তাদের এই উৎসবকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছেন।   অনেকেই অভিযোগ করেছেন যে যুবকেরা অপরিচিত এবং দলবদ্ধভাবে এই তাণ্ডব চালিয়েছে। এটা  সত্যিই লজ্জাজনক। এদিকে, এ ঘটনার ফুটেজ শেয়ার করে সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে ক্ষোভ প্রকাশ।   


মন্তব্য