kalerkantho


শিশুদের আগ্রহ বাড়ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের প্রতি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০৬:২৮



শিশুদের আগ্রহ বাড়ছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরের প্রতি

প্রাচীন জিনিসের সংগ্রহশালা হলো জাদুঘর। তবে বিজ্ঞান জাদুঘরের ক্ষেত্রে বিষয়টি একটু আলাদা।

যেখানে পুরনো জিনিসের পাশাপাশি আছে নতুন কিছুর শিক্ষা। এক কথায় বিজ্ঞান জাদুঘরকে বলা হয়, অনানুষ্ঠানিক বিজ্ঞান শিক্ষা কেন্দ্র।

১৯৮৫ সালে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর প্রতিষ্ঠিত হলেও এখানে সাধারণের আনাগোনা একটু কমই চোখে পড়ে। সাধারণত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রতি আগ্রহ আছে এমন দর্শনার্থীরা এখানে ভ্রমণ করেন। এদের বেশিরভাগই রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে বিভিন্ন স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী। বিজ্ঞানের প্রতি আগ্রহ থাকার পরও অনেক বিজ্ঞান মনস্ক মানুষ না জানার কারণে এখানে আসতে পারে না।

আর এজন্য অবস্থানগত কারণ এবং প্রচারের অভাবকে বেশি দায়ী করছে কর্তৃপক্ষ। তবে কর্তৃপক্ষের দাবি, আগের চেয়ে সাধারণের আগ্রহ বেড়েছে। গত সাত মাসে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘর ভ্রমণ করেছে ৫৮ হাজার ৬৮৬ দর্শনার্থী।

প্রতিদিন গড়ে ৩০০ দর্শনার্থী এ জাদুঘর ভ্রমণ করতে আসছে। এদের মধ্যে বেশিরভাগই রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী।

এ ছাড়া রাজধানীর বাইরে থেকেও বিজ্ঞান মনস্ক দর্শনার্থীরা বিজ্ঞানের এ সংগ্রহশালায় আসে। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, আগের চেয়ে বিজ্ঞান মনস্ক মানুষের সংখ্যা বেড়েছে। পাশাপাশি বেড়েছে বিজ্ঞান শিক্ষার হারও।

২০১৫-১৬ অর্থ বছরে জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি জাদুঘরে মোট দর্শনার্থীর সংখ্যা ছিল ৮০ হাজার ২১০ জন। চলতি অর্থ বছরের সাত মাসে ভ্রমণ করেছে ৫৮ হাজার ৬৮৬ জন। ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে ভ্রমণকারীর সংখ্যা দ্বিগুণেও বেশি হবে বলে আশা কর্তৃপক্ষের।

এখানে আছে সাতটি প্রদর্শনী গ্যালারি। যেখানে দর্শনার্থীরা মজার বিজ্ঞান, ভৌত বিজ্ঞান, শিল্প-প্রযুক্তি, জীববিজ্ঞান, মহাকাশ বিজ্ঞান, তরুণ বিজ্ঞানীদের উদ্ভাবিত প্রকল্প উন্নয়ন সম্পর্কে নানা প্রদর্শনী দেখতে পান। এসব গ্যালারি সপ্তাহের রবিবার থেকে বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা, শুক্রবার বিকাল ২টা ৩০ মিনিট থেকে সন্ধ্যা ৭টা এবং শনিবার সকাল ৯টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে। বৃহস্পতিবার বন্ধ থাকে। টিকিট মূল্য সাধারণের জন্য ১০ টাকা, শিক্ষার্থীদের জন্য ৫ টাকা। শুক্র ও শনিবার সন্ধ্যায় এক ঘণ্টা টেলিস্কোপের মাধ্যমে আকাশ পর্যবেক্ষণ করানো হয়। যেখানে শনি, বৃহস্পতি, মঙ্গল, শুক্র গ্রহ দেখা যায়। এ ছাড়া রয়েছে লাইব্রেরি যেখানে ৬ হাজার বিজ্ঞান বিষয়ক বই আছে।


মন্তব্য