kalerkantho


শারীরিক উন্নতির দিকে হারুনার রশিদ মুন্নু

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ মার্চ, ২০১৭ ০০:৩১



শারীরিক উন্নতির দিকে হারুনার রশিদ মুন্নু

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মন্ত্রী হারুনার রশিদ খান মুন্নুর শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে যাচ্ছে। দুই একদিনের মধ্যে তিনি বাড়ি ফিরতে পারবেন বলে জানিয়েছেন ল্যাব এইড হাসপাতালের সিনিয়র কন্সালটেন্ট কার্ডিওলজিস্ট ডা. আ প ম সোহরাবুজ্জামান গতকাল রবিবার রাতে তিনি এ তথ্য জানান।

হারুনার রশিদ, মুন্নু সিরামিকের প্রতিষ্ঠাতা ও মুন্নু গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের চেয়ারম্যান।

ডা. সোহরাবুজ্জামান বলেন, 'তার হৃদরোগ, কিডনি কম কাজ করা ও ফুসফুসে সংক্রমণের সমস্যাই বেশি। তিনি যখন আমাদের এখানে আসেন তখন এগুলো সহ শ্বাসকষ্ট ও রক্ত শূন্যতা ছিল। চিকিৎসা দেওয়ার পর শারীরিকভাবে তিনি এখন সুস্থতার দিকে যাচ্ছেন, এখন ভালো আছেন। ফুসফুসে সংক্রমণ কমছে, কিডনির চারদিকে পানি জমে গেছে। তিনি সিঙ্গাপুরের যে হাসপাতালে এর আগে চিকিৎসা নিয়েছেন মূলত মুন্নু সাহেবের ডাক্তার তারাই। আমার এখানে এইবার প্রথম এসেছেন। তার ইচ্ছে আছে এরপর আবার সিঙ্গাপুরে যাওয়া। ওখানে যাওয়াই বেটার।

আমরা সিঙ্গাপুরের তার চিকিৎসকদের কাছে চিঠি পাঠিয়েছি যে, আমরা এই এই চিকিৎসা করেছি। দুই-এক দিনের মধ্যে তিনি বাড়ি যেতে পারবেন।

তার এক আত্মীয় বলেন, 'আমরা কয়েকদিনের মধ্যে বাড়ি নিয়ে যাবো। দেশবাসির কাছে দোয়া চাই, তিনি যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর শুনে গত শনিবার রাত ৯ টার দিকে ৯২ বছর বয়সী বিএনপির এই উপদেষ্টাকে দেখতে যান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ সময় বেগম জিয়ার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন দলের ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মইনুল ইসলাম শান্ত, কেন্দ্রীয় নেতা আমিনুল হক, আবদুস সালাম আজাদ, শহীদুল ইসলাম বাবুল, সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু।

এরপর গতকাল দেখতে যান বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসের আলাল, খায়রুল কবির খোকন, ছাত্রদলের নেতা শফিকুল ইসলাম শফিক সহ মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও থানা পর্যায়ের নেতারা।

হারুনার রশীদ ২০০১ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মন্ত্রিসভার সদস্য ছিলেন। কিন্তু তিনি কোনো দপ্তরের দায়িত্বে ছিলেন না।


মন্তব্য