kalerkantho


ব্যাংকের এমডি পদের জন্য দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র: প্রধানমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৯ মার্চ, ২০১৭ ১৩:০৬



ব্যাংকের এমডি পদের জন্য দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র: প্রধানমন্ত্রী

একটি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের (এমডি) পদে থাকতে একজন স্বনামধন্য ব্যক্তি দেশের বিরুদ্ধে যে ষড়যন্ত্র করেছেন তার বিচার জনগণ করবেন বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে পাট দিবস-২০১৭  উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণী ও পাট মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠনে তিনি এ কথা বলেন।

আলোচনা সভায় নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মোহাম্মদ ইউনূসকে ইঙ্গিত করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশের স্বনামধন্য একজন ব্যাংকের এমডি পদ নিয়ে কত বড় ষড়যন্ত্র করলেন। পদ্মা সেতুর কাজ পর্যন্ত বন্ধ করে দিলেন। ব্যাংকের এমডি পদের লোভে যে দেশের এতো বড় সর্বনাশ করতে পারে, তার বিচার দেশবাসী একদিন করবে।

তিনি আরও বলেন, বয়স হয়েছে এমডি পদ ছেড়ে দেবেন, এটাই নিয়ম। শেখ হাসিনা বলেন, সে সময় মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে বিশ্বব্যাংক বলছিলো, এই করলে টাকা দেবে, ওই করলে টাকা দেবে। কিন্তু আমি বলেছিলাম, মিথ্যা অভিযোগ নিয়ে আমরা কোনও টাকা নেবো না। তখন আমি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছিলাম যে পদ্মা সেতু প্রকল্পে কোনও দুর্নীতি হয়নি। কানাডার আদালতে তা প্রমাণ হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ওই সময় আমার ও আমার পরিবারের ওপর দিয়ে যে কত অত্যাচার গেছে, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারবো না।

দেশের মানুষের মান মর্যাদা আমার ও আমার পরিবারের জন্য ক্ষুন্ন হবে না, অন্তত এটা আমি কথা দিতে পারি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় এসে পাটকল বন্ধ করতে বিশ্ব ব্যাংকের সঙ্গে একটি চুক্তি করে।   ১৯৯৩ সাল থেকে গোল্ডেন হ্যান্ড শেকের মাধ্যমে শ্রমিকদের বিদায় দেওয়ার চুক্তিও করে। একই সময় বিশ্বব্যাংক ভারতকে পাটকল চালুর জন্য টাকা দেওয়ার চুক্তি করে। বিএনপির সময় বিশ্বব্যাংকের কথা ফেরেশতার মতো ছিলো। তিনি আরও বলেন, পাট একটি সোনালী আঁশ। যার কপাল পুড়তে শুরু করে ১৯৭৫  সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে। বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে পাটই ছিল এক সময় মূল্যবান সম্পদ। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী পাটের শাড়ি পড়ে আসেন। এ সময় তার  হাতে পাটের ভ্যানিটি ব্যাগও দেখা যায়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী এমাজউদ্দিন প্রামাণিক।


মন্তব্য