kalerkantho


২০২১ সালের মধ্যে সকলের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করবে সরকার

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৪ মার্চ, ২০১৭ ২১:৩৮



২০২১ সালের মধ্যে সকলের জন্য বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করবে সরকার

সরকার ভিশন - ২০২১ বাস্তবায়নের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে সকলের জন্য নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ইতিমধ্যেই দেশের ৮০ ভাগ লোক বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় এসেছে।

২০০৯ সালের আগে মাত্র ৪৭ ভাগ লোক দেশের বিদ্যুৎ সুবিধা পেয়েছে। এ সময়ে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ছিল মাত্র ৪,৯৪২ মেগাওয়াট। বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫,৩৫১ মেগাওয়াট।

এ ব্যাপারে আজ শনিবার বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এমপি জানান, আমরা ২০২১ সালের মধ্যে দেশের সকল নাগরিককে বিদ্যুৎ সুবিধার আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা করেছি। বর্তমানে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১৫,৩৫১ মেগাওয়াট, যা আট বছর আগের বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রায় তিনগুণ বেশি।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের আর্থ সামাজিক অঙ্গনে গত আট বছরে বিদ্যুৎ সেক্টরে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে। এতে কর্মসংস্থান ও খাদ্য উৎপাদন, শিক্ষার হার ও নারীর উন্নয়ন বৃদ্ধি পেয়েছে।

নসরুল হামিদ বলেন, জীবন যাত্রার মান উন্নয়ন এবং দরিদ্র ও অতিদরিদ্র লোকের অবস্থার উন্নয়নে ২০২১ সালের মধ্যে ২৪,০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০০৯ সালে যখন ক্ষমতায় আসেন, তখন দেশে মাত্র ২৭টি বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র ছিল।

বর্তমানে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০৮টি।

বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তারা জানান, ২০১৯ সালের মধ্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানী থেকে ৬৯৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদিত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনের প্রচেষ্টায় আরো একটি সাফল্য যোগ হবে।

প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, দেশে সোলার জ্বালানীর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সরকার এ শিল্পের সহায়তায় মিরসরাই ও গাইবান্ধায় ২০০০ একর জমিতে একটি সোলার পার্ক করার পরিকল্পনা করেছে।

সরকারি সূত্র জানায় সরকার ২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যুতের উৎপাদন ২৪০০০ মেগাওয়াট করার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করেছে। কৃষি ও শিল্পে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য সঞ্চালন ও বিতরণ লাইন নির্মাণ করা হচ্ছে।

বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রনালয়ের অধিন পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ হোসেন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ২৪,০০০ মেগাওয়াট, ২০৩০ সালের মধ্যে ৪০,০০০, ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০,০০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের একটি মাস্টার প্লান বাস্তবায়ন করছে। তিনি আরো বলেন, এ লক্ষ্যে এসআরইডিএ আইন-২০১২ এর অধিন টেকসই ও নবায়ন উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (এসআরইডিএ) গঠন করা হয়েছে।

ইঞ্জিনিয়ার হোসেন বলেন, ২০২০ সালের মধ্যে নবায়নযোগ্য জ্বালানী থেকে ১০ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নিধার্রণ করা হয়েছে। এই লক্ষ্য অর্জনে ২০২১ সালের মধ্যে নবায়ন যোগ্য জ্বালানী থেকে প্রায় ৩,১০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

পাওয়ার সেলের প্রধান বলেন, সরকার বিদ্যুৎ উৎপাদনে দ্বিপক্ষীয় ও আন্তর্জাতিক সহায়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে বিগত আট বছরে কয়েকটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছে। এ ছাড়া নেপাল ও ভূটান থেকে জলবিদ্যুৎ এবং মিয়ানমার থেকে বিদ্যুৎ ও জ্বালানী আমদানি করতে আলোচনা চলছে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকারের নিরলস প্রচেষ্টায় ঘন্টায় মাথাপিছু বিদ্যুৎ উৎপাদন বেড়ে এখন হয়েছে ৪০৭ কিলোওয়াট। ২০০৯ সালে ছিল ২২০ কিলোওয়াট।


মন্তব্য