kalerkantho


'হোশি হত্যা মামলার রায় দ্রুত বিচার নিষ্পন্নের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২১:১২



'হোশি হত্যা মামলার রায় দ্রুত বিচার নিষ্পন্নের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত'

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, জাপানী নাগরিক কুনিও হোশি হত্যা মামলায় রংপুর আদালতের রায় দ্রুততম সময়ে হত্যা মামলা নিষ্পন্নে এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। নিম্ন আদালতের এই গফশ ধরে রাখলে মামলা জট হবে না।


মন্ত্রী আজ আইন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, এটাই প্রথম নয়- এর আগে বিভিন্ন বিচারিক আদালতে রাজন ও রাবিক হত্যাকান্ডের মতো কিছু মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি হয়েছে। এ ধরনের দ্রুত বিচার দেশে দায়মুক্তির সংস্কৃতি দূর করতে মুখ্য ভূমিকা পালন করবে।
মন্ত্রী হোশি মামলার রায়ের জন্য রংপুরের সংশ্লিষ্ট আদালত ও প্রসিকিউশনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আমরা দেশের প্রত্যেক মামলাই এমন নজর দিতে চেষ্টা করছি। যাতে জনগণ দ্রুত বিচার পায়।
তিনি বলেন, আমরা হোশি, রাজন ও রাকিবের মামলাগুলো উদাহরণ হিসেবে নিয়ে দেশবাসী প্রসিকিউশনকে এ বার্তা দিতে চাই যে, মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি করতে হবে। নজরদারি থাকলে এটি সম্ভব বলে মন্ত্রী উল্লেখ করেন।
আজ রংপুরের এক বিশেষ ট্রাইব্যুনালে জেলায় ২০১৫ সালে হোশি হত্যাকান্ডের মামলায় ৫ জঙ্গীর প্রত্যেককে মৃত্যুদন্ড ও ২০ হাজার টাকা করে জরিমানা প্রদানের রায় দেয়া হয়। এই রায়ে ৬ জন আসামীর মধ্যে রংপুরের খামার স্থাপনকারী একজনকে খালাস দেয়া হয়।
এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, ঢাকায় হলি আর্টিসান ক্যাফের রক্তক্ষয়ী মামলার পর কিছু মানুষ সন্দেহ করেছিল যে, বাংলাদেশ এই ধকল সামলাতে পারবে না। কিন্তু আমরা সমালোচকদের ভুল প্রমাণ করেছি। আমরা ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সফল টিকেট সিরিজ ও রোলবল বিশ্বকাপের আয়োজন করেছি। আমরা জঙ্গিবাদের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত এর কোনো স্বাক্ষর নেই।
রাজনৈতিক মামলা দ্রুত নিষ্পত্তি সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমি এ ব্যাপারে কেবল একটি উদাহরণ দিতে চাই যে, বেগম খালেদা জিয়া তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলায় গড়ে বিশবার সময় নিয়েছেন। এতে মামলা দীর্ঘায়িত হবেই। এখানে আমরা কি করতে পারি?
চালকের (ড্রাইভার) বিরুদ্ধে আদালতের দেয়া রায়ের প্রতিবাদে পরিবহন শ্রমিকদের দেশব্যাপী ধর্মঘট প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সহকর্মীদের বিরুদ্ধে এই রায়ে বিক্ষুব্ধ হলে পরিবহন শ্রমিকরা উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারেন। যৌক্তিক কোনো পয়েন্ট থাকলে আদালত বিষয়টি দেখবে। কিন্তু এ জন্য সাধারণ মানুষকে কষ্ট দেয়া যায় না।


মন্তব্য