kalerkantho


গত অর্থবছরে পাট ও পাটজাত দ্রব্যে আয় ৭,২৯৪.৪০ কোটি টাকা : পাটমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২০:১৬



গত অর্থবছরে পাট ও পাটজাত দ্রব্যে আয় ৭,২৯৪.৪০ কোটি টাকা : পাটমন্ত্রী

বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী মুহাঃ ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক বলেছেন, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বাংলাদেশ ১৯ দশমিক ৬২ লাখ বেল পাট ও পাটজাত দ্রব্য রপ্তানি করে ৭ হাজার ২৯৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা আয় করেছে। যা গত অর্থবছরের চেয়ে ৮৭৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা বেশি।

আজ সোমবার সংসদে সরকারি দলের সদস্য নিজাম উদ্দিন হাজারীর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশে গত মৌসুমে পাট উৎপাদনের পরিমাণ ছিল ৮২ দশমিক ৪৬ লাখ বেল। ওই সময়ে পাট ও পাটজাত দ্রব্য রফতানি হয়েছে ১৯ দশমিক ৬২ লাখ বেল।

পাটমন্ত্রী বলেন, গত অর্থবছরে ১১ দশমিক ৩৭ লাখ বেল পাট রপ্তানি করে আয় হয়েছে ১ হাজার ৫৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা। যেখানে একই সময়ে পাট ও পাটজাত দ্রব্য ৮ দশমিক ২৫ লাখ মেট্রিক টন পাটজাত দ্রব্য রপ্তানি করে ওই অর্থবছরে আয় হয়েছে ৬ হাজার ২৪০ কোটি টাকা।

ইমাজ উদ্দিন প্রামানিক বলেন, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১৮ দশমিক ১৯ লাখ বেল পাট ও পাটজাত দ্রব্য রপ্তানি করে দেশ ৬ হাজার ৪১৮ কোটি ৯০ লাখ টাকা আয় করেছে। বাংলাদেশ মোট ১০ দশমিক ০১ লাখ বেল পাট রপ্তানি করে আয় করেছে ৮১৬ কোটি ৭৪ লাখ টাকা, যেখানে পাট ও পাটজাত দ্রব্য রপ্তানি আয় ছিল ৫ হাজার ৬০২ কোটি ১৬ লাখ টাকা।

সরকারি দলের সদস্য অ্যাডভোকেট মো. রহমত আলীর অপর এক প্রশ্নের জবাবে পাটমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে উৎপাদিত পাট ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, চীন, রাশিয়া, ইউকে, আইভরিকোস্ট, ভিয়েতনাম, জিবুতি, ফিলিপাইন, ব্রাজিল, আলসালভেদর এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে রফতানি করা হয়। এছাড়া পাটজাত্য পণ্য বর্তমানে ১১৮টি দেশে রফতানি করা হচ্ছে।


মন্তব্য