kalerkantho


কালের কণ্ঠের সেরা প্রতিবেদন পুরস্কার

তিন মাসে পুরস্কৃত হলেন সাতজন প্রতিবেদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:১৭



তিন মাসে পুরস্কৃত হলেন সাতজন প্রতিবেদক

নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল ও সিনিয়র সাংবাদিকদের সঙ্গে পুরস্কারপ্রাপ্ত সাংবাদিকরা

কালের কণ্ঠের মাসিক সেরা প্রতিবেদনের জন্য আজ শনিবার বিকেলে সাতজন প্রতিবেদককে পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। গত নভেম্বর মাসে প্রথম সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার পেয়েছেন বগুড়ার নিজস্ব প্রতিবেদক লিমন বাশার।

একই মাসে দ্বিতীয় সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার পান জেষ্ঠ্য প্রতিবেদক আশরাফুল হক রাজীব। ডিসেম্বর মাসে প্রথম সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার পেয়েছেন জেষ্ঠ্য প্রতিবেদক হায়দার আলী। একইমাসে দ্বিতীয় সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার পান উপ-প্রধান প্রতিবেদক পার্থ সারথি দাস। এ বছরের জানুয়ারি মাসে প্রথম সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার যৌথভাবে পেয়েছেন প্রধান প্রতিবেদক আজিজুল পারভেজ ও নিজস্ব প্রতিবেদক শরীফুল আলম সুমন। একই মাসে দ্বিতীয় সেরা প্রতিবেদনের পুরস্কার পান জেষ্ঠ্য প্রতিবেদক তৌফিক মারুফ।  

প্রতিবেদকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক মোস্তফা কামাল। উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী আফতাবুল ইসলাম ও বার্তা সম্পাদক খায়রুল বাশার শামীম। আজ শনিবার কালের কণ্ঠের রিপোর্টারদের সাপ্তাহিক সভায় সাতজন প্রতিবেদককে সেরা প্রতিবেদনের এই পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। পুরস্কারপ্রাপ্তদের প্রশংসাপত্রের সঙ্গে আর্থিক সম্মাননাও দেওয়া হয়।

 

যারা যে প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পেলেন: লিমন বাসার গত ২০ নভেম্বর প্রকাশিত 'চুক্তি অনুযায়ী জমি সাঁওতালরাই পাবে' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2016/11/20/431194) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পান।  
আশরাফুল হক রাজীব ১৩ নভেম্বর প্রকাশিত 'বিসিএসে সংস্কার আসছে' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2016/11/13/428370) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পান।  

হায়দার আলী ২৭ ডিসেম্বর প্রকাশিত 'সংসদ ভবনে কলেজের নিয়োগ পরীক্ষা' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/2016/12/27) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পান।  

পার্থ সারথি দাস ৮ ডিসেম্বর প্রকাশিত 'বিআরটিসি খেয়ে ফেলছে সিন্ডিকেট' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2016/12/08/438385) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পান।  

আজিজুল পারভেজ ৫ জানুয়ারি প্রকাশিত 'পাঠ্য বইয়ে এসব কী' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2017/01/05/448902) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পেয়েছেন।  

শরীফুল আলম সুমন ৮ জানুয়ারি প্রকাশিত 'ডাহা ভুলে চোখ বুজে নম্বর' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2017/01/08/449973) অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পেয়েছেন।  

তৌফিক মারুফ ২৭ জানুয়ারি প্রকাশিত 'ডাক্তারদের ফি নিয়ে নৈরাজ্য' (http://www.kalerkantho.com/print-edition/first-page/2017/01/27/456725) প্রতিবেদনের জন্য পুরস্কার পান।


মন্তব্য