kalerkantho


লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসে গুলি

অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন কূটনীতিক

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০২:৫৩



লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসে গুলি

লিবিয়ার ত্রিপোলিতে বাংলাদেশ দূতাবাসে গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার দিকে (স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টা) গুলি চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সে সময় দূতাবাস প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠান চলছিল।

তিনটি গুলি দূতাবাসের দেয়ালে বদ্ধি হয়। অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন বাংলাদেশের চার্জ দি অ্যাফেয়ার্স (সিডিএ) মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক। তিনিই বর্তমানে লিবিয়ায় বাংলাদেশের শীর্ষ কূটনীতিক।

গত রাতে লিবিয়া থেকে পাওয়া খবরে জানা গেছে, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের অনুষ্ঠান চলাকালে হঠাৎ বাইরে কয়েকটি গুলির শব্দ শোনা যায়। তিনটি গুলি দূতাবাস প্রাঙ্গণে দেয়ালে লাগে। এর মধ্যে একটি গুলি সিডিএ মোহাম্মদ মোজাম্মেল হকের অবস্থান থেকে প্রায় পাঁচ ফুট দূরে এবং আরেকটি কয়েক ইঞ্চি দূর দিয়ে গিয়ে দেয়ালে বদ্ধি হয়। গুলির শব্দ শুনেই উপস্থিত অভিবাসী বাংলাদেশিরা দৌড়ে সে এলাকা ছেড়ে যায়। কারা এ হামলা করেছে তা স্পষ্ট নয়। বাংলাদেশ দূতাবাসই ওই হামলার লক্ষ্য ছিল কি না তাও নিশ্চিত করা যায়নি।


সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, সংঘাতময় লিবিয়ায় সশস্ত্র মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলো পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটও (আইএস) সেখানে সক্রিয়। এমন পরিস্থিতিতে দূতাবাসের নিরাপত্তায় স্থানীয় কোনো উদ্যোগ নেই। কারণ যুদ্ধবিধ্বস্ত ওই দেশটিতে সরকার বলে কিছু নেই। মিলিশিয়া গোষ্ঠীগুলো দেশের বিভিন্ন এলাকা নিয়ন্ত্রণ করছে।

প্রতিকূল পরিস্থিতি সত্ত্বেও লিবিয়ায় অভিবাসী বাংলাদেশিদের স্বার্থে বাংলাদেশ সরকার দূতাবাস কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। লিবিয়ায় বর্তমানে প্রায় ১৫ হাজার বাংলাদেশি রয়েছে। লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পেজের মাধ্যমে সতর্কতামূলক পোস্ট দেওয়া হয়। আবার একইভাবে অভিবাসী বাংলাদেশিরাও সেখানে বিভিন্ন তথ্য দিয়ে থাকে। গত রাতে এ প্রতিবেদন লেখার সময় অভিবাসী এক বাংলাদেশি বাংলাদেশ দূতাবাসের ফেসবুক পেজে লিখেছেন, বৃহস্পতিবার রাত থেকে লিবিয়ার ত্রিপোলি শহরের ভুচলিম, গেরগেরিশ, রিয়াদিয়ার আশপাশে প্রচণ্ড গোলাগুলি হচ্ছে। তিনি সব বাংলাদেশিকে সতর্ক থাকার অনুরোধ জানান।

প্রতিকূল পরিস্থিতির কারণে সরকার লিবিয়ায় জনশক্তি পাঠানো বন্ধ রেখেছে।


মন্তব্য