kalerkantho


'দল নিরপেক্ষ সরকার হলেই বোঝা যাবে হুদা না অন্য কমিশন'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:০৮



'দল নিরপেক্ষ সরকার হলেই বোঝা যাবে হুদা না অন্য কমিশন'

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, দল নিরপেক্ষ সরকার না থাকলে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন দিয়ে কিছুই হবে না। এজন্য তিনি বেগম খালেদা জিয়ার সাথে আবারো আলোচনায় বসার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

আজ শুক্রবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে কবি আবদুল হাই শিকদারের রচনা ও সম্পাদনা গ্রন্থ ‘বাংলাদেশের অলি আহাদ’ এর প্রকাশনা উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

বি. চৌধুরী বলেন, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের আগে শেখ হাসিনা আলোচনার প্রস্তাব দিলে খালেদা জিয়া প্রত্যাখান করে ভুল করেছিলেন। হয়তো তিনি কোনো দলের প্রচারণায় এ কাজটি করেছিলেন। যারা তাকে বলেছিলো আমাদের অনেক লোক আছে, আমরা অনেক কিছু করে দেব।

খালেদা জিয়ার উদ্দেশে তিনি বলেন, জনগণ এখনো জিয়াউর রহমানের ধানের শীষ মনে রেখেছে এটা একটি বিরাট ব্যাপার। কিন্তু জনগণ আপনাদের পাশে আছে ভেবে বেশি বাড়াবাড়ি করা ভালো না। যেকোনো সময় তারা মুখ ফিরিয়েও নিতে পারে, কারণ দেশের জনগণের স্মৃতিশক্তি অত ভালো নয়।

সাবেক রাষ্ট্রপতি বলেন, প্রধানমন্ত্রী আপনি বঙ্গবন্ধু কন্যা হিসেবে আবারো মহাত্ম্য প্রকাশ করুন। নির্বাচনের জন্য একটি দল নিরপেক্ষ সরকার গঠনের জন্য খালেদা জিয়াকে আবার আলোচনায় বসার আহ্বান জানান।

দল নিরপেক্ষ সরকার হলেই তখন বোঝা যাবে হুদা না অন্য কমিশন।  

সামনে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচন দিয়ে ইসির অবস্থান বোঝা যাবে বলেও মন্তব্য করেন বিকল্পধারার সভাপতি। তিনি বলেন, দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি ধীরে ধীরে অনেক নিচে নেমে যাচ্ছে। দেশের মানুষ এখনো নিশ্চিন্তে রাস্তায় নামতে ভয় পায়। কে কোথায় কখন হারিয়ে যায় তার কোনো ঠিক নেই। সন্তানরা বিপদমুক্ত নয়। স্বাধীন দেশে মানুষ স্বাধীনভাবে চলতে পারে না। এজন্য সরকার-বিরোধী দল সবাই দায়ী। তবে এ অবস্থা থেকে উত্তরণে সরকারকেই ভূমিকা রাখতে হবে।

ভাষা সৈনিক অলি আহাদ একজন মহান নেতা ছিলেন মন্তব্য করে বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, আমাদের অলি আহাদের মতো একটি নতুন প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে। দেশের রাজনৈতিক সম্প্রীতির সংস্কৃতিকে আবার ফিরিয়ে আনতে হবে।

এ ছাড়াও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল্লাহ চৌধুরীর সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ভাষা সৈনিক অধ্যাপক আবদুল গফুর, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ও কলামিস্ট ড. মাহবুব উল্লাহ, ঢাবির সাবেক প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, ‘বাংলাদেশের অলি আহাদ’ বইয়ের প্রকাশক অ্যাডর্ন পাবলিকেশনের স্বত্ত্বাধিকারী সৈয়দ জাকির হোসাইন।


মন্তব্য