kalerkantho


ই-৯ ফোরামের শিক্ষামন্ত্রীদের ঢাকা সম্মেলনে চার পদক্ষেপ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০৯:২১



ই-৯ ফোরামের শিক্ষামন্ত্রীদের ঢাকা সম্মেলনে চার পদক্ষেপ

তিনদিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ঢাকা সম্মেলনে ই-নাইন সদস্য দেশগুলো নিজেদের দায়িত্ব সুনির্দিষ্ট করে একটি অ্যাকশন প্লান তৈরি করেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এই লক্ষ্যে চারটি পদক্ষেপের উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘ফোরামের সদস্য দেশগুলোর কমন সমস্যাগুলো চিহ্নিত করা হয়েছে।

এগুলো হলো বয়স্ক শিক্ষার হার বাড়ানো, মেয়ে শিশুদের স্কুলে নিয়ে আসা, ঝরে পড়া কমানো এবং মানসম্মত শিক্ষা অর্জনে আরও সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করার জন্য পদক্ষেপ নেওয়া। ’ মঙ্গলবার ই-৯ শিক্ষামন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে সমাপনী বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
গত রবিবার, ০৫ ফেব্রয়ারি নয়টি দেশের শিক্ষামন্ত্রী/প্রতিনিধিরা সম্মেলনে অংশ নেন। ওইদিন সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্মেলনে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। প্রথমদিন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ই-নাইন ফোরামে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন।
শেষদিন ফেরাম সভাপতি বাংলাদেশের শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘ই-নাইন সদস্য রাষ্ট্রগুলোর শিক্ষা বিষয়ক লক্ষ্য বাস্তবায়নে ফোরামের সদস্য রাষ্ট্র ও ইউনেস্কোর যৌথ প্রয়াস টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। ’
ঢাকায় অনুষ্ঠিত তিনদিনব্যাপী সম্মেলনের শেষ দিনে সর্বসম্মতিক্রমে ই-নাইন চেয়ার, সদস্য রাষ্ট্র ও ইউনেস্কোর দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে সুনির্দিষ্ট টার্মস অব রেফারেন্স গৃহীত হয়। এর ফলে সদস্য রাষ্ট্রগুলো নিজেদের মধ্যে পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময় ও সহযোগিতার মাধ্যমে শিক্ষার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। যা ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি-৪ বাস্তবায়নে সহায়ক হবে।
সমাপনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ভারতের মানবসম্পদ উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী উপেন্দ্র কিশোর (Upendra Kushwaha), ইউনেস্কো প্রতিনিধি জর্ডান নাইডু (Jordan Naidoo) এবং অংশ নেওয়া দেশের প্রতিনিধিরা বক্তব্য রাখেন।
সফলভাবে এ সম্মেলন আয়োজনের জন্য বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানান ফোরাম সদস্য দেশগুলো। পাশাপাশি এ সম্মেলন আয়োজনে সার্বিক সহায়তার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ইউনেস্কোর মহাপরিচালক ইরিনা বোকোভাকে ধন্যবাদ জানানো হয়।


মন্তব্য