kalerkantho


এ প্রজন্মের হাতে প্রযুক্তি তুলে দিতে হবে : তারানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:০৭



এ প্রজন্মের হাতে প্রযুক্তি তুলে দিতে হবে : তারানা

প্রযুক্তি বান্ধব হতে হলে এ প্রজন্মের হাতে প্রযুক্তি তুলে দিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) আজ শুক্রবার দুপুরে মাইক্রোসফট বাংলাদেশের আয়োজনে বেসিস সফট এক্সপো ২০১৭ তে কোডিং ফর কিডস শীর্ষক এক কর্মশালায় তিনি এ মন্তব্য করেন। তারানা হালিম বলেন, এ প্রজন্ম প্রযুক্তিনির্ভর প্রজন্ম। নতুন প্রজন্মের প্রযুক্তির প্রতি এ আকর্ষণ ইতিবাচকভাবে কাজে লাগাতে হবে। তাদের সাইবার স্পেসে বিচরণ করতে হবে। এ প্রজন্ম বলিষ্ঠভাবে বেড়ে উঠছে। গত কয়েকবছরে টেলিকমিউনিকেশনে আমাদের অনেক অগ্রগতি হয়েছে। এ প্রজন্মের কাছে এখন কম্পিউটার ও মোবাইলের মতো হাতিয়ার রয়েছে। কিন্তু এগুলো ব্যবহার করতে হবে ইতিবাচকভাবে। বিশেষভাবে Safe use of Internet এর দিকে জোর দিতে চাই।

তিনি আরও বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন কোনো পোস্ট দেওয়া উচিত নয় যাতে কারও সম্মানহানি হয় অথবা কাউকে ছোট করা হয়।

এ দিকে সকলের খেয়াল রাখতে হবে। এ প্রজন্মের বিজ্ঞান জ্ঞানার্জনের দিকে জোর দিতে হবে। মেয়েদের কম্পিউটার লিটারেসিতে এগিয়ে আসতে হবে। এ জন্য লজ্জা ভেঙে বাবা-মাকেও উদ্যোগ নিতে হবে। দেখতে হবে সন্তান ইন্টারনেট দিয়ে কি করছে।

টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী বলেন, মোবাইল হাতে আছে কিন্তু তাতে ইন্টারনেট নেই তা হবে না। মোবাইলে ইন্টারনেট থাকতে হবে। এ সেবা পৌছে দেওয়া আমাদের অন্যতম উদ্দেশ্য। এ বিষয়টি নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বিটিসিএল গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলে গিয়ে দেখছে ইন্টারনেটের গতি কেমন। আমরা চাই যেখানে যে গতির কথা বলা হয়েছে সেখানে তা পাচ্ছে কি না। আমরা চাই এ ধরনের অন্য অনুষ্ঠানেও উদ্যোক্তারা বিটিসিএলকে বলুক। আমরা এ ধরনের আয়োজনের সঙ্গে থাকতে চাই।

ডাক প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভয়ভীতি কাটিয়ে সবাইকে প্রযুক্তি ব্যবহার করতে হবে ইতিবাচকভাবে। সবার হাতে থাকবে মোবাইল, ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটবে। নিজেদের মধ্যে এ প্রজন্ম নেটওয়ার্ক গড়ে তুলবে। কেউ সমস্যায় পড়লে তাকে কাউন্সিল করবে। প্রযুক্তির ব্যবহার সবার জন্য যেন হয় নিরাপদ। কর্মশালায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পলিসি ও অপারেশন) আবদুর রব, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের স্থানীয় উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ নাইমুজ্জামান মুক্তা, মাইক্রোসফট বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সোনিয়া বশির কবির প্রমুখ বক্তব্য দেন।

 


মন্তব্য