kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সম্মেলনের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:৩৮



সম্মেলনের উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা

আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে সকাল ১০টায় ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পৌঁছেছেন দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। এরপর সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি।

জাতীয় সঙ্গীতের সাথে সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন সভানেত্রী। এরপর সকাল ১০টা ১২ মিনিটে বেলুন এবং সাদা পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি। জাতীয় সম্মেলনে এরই মধ্যে এসেগেছেন নেতা-কর্মীরা। এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে রাজধানী ঢাকাকে সাজানো হয়েছে নবরূপে। পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, তোরণ, আলোকসজ্জায় ঝলমল করছে ঢাকা। ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংগ্রামের ধারাকে সমুন্নত রেখে অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলনে ৬ হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর ও সমসংখ্যক ডেলিগেট অংশ নেবেন। এ ছাড়া দেশি-বিদেশি আমন্ত্রিত অতিথি মিলিয়ে ৫০ হাজার মানুষের সমাগম ঘটবে সম্মেলনে।

আজ শনিবার সকাল ৭টা থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা আসছেন। পল্টন, মতিঝিল, শাহবাগসহ বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে নেতা-কর্মীদের সম্মেলনস্থলে আসতে দেখা যায়। ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংগ্রামের ধারাকে সমুন্নত রেখে শনি ও রবিবার ( ২২ ও ২৩ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হবে দলের এই ২০তম ত্রিবার্ষিক জাতীয় সম্মেলন। সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে দলের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করবেন।
 
সম্মেলনের উদ্বোধনী অধিবেশনে আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার ভাষণে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীকে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতির নির্দেশসহ দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ, শোক প্রস্তাব, আগত অতিথিদের স্বাগত জানিয়ে অভ্যর্থনা উপ-কমিটিগুলোর আহ্বায়কদের ভাষণ, সাধারণ সম্পাদকের প্রতিবেদন পেশ, অতিথিদের ভাষণ এবং সর্বশেষে সভানেত্রীর বক্তব্যের মধ্য দিয়ে প্রথম দিনের কর্মসূচি শেষ হওয়ার কথা।
 
এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে রাজধানী ঢাকাকে সাজানো হয়েছে নবরূপে। পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুন, তোরণ, আলোকসজ্জায় ঝলমল করছে ঢাকা। ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংগ্রামের ধারাকে সমুন্নত রেখে অনুষ্ঠিতব্য এ সম্মেলনে ৬ হাজার ৫৭০ জন কাউন্সিলর ও সমসংখ্যক ডেলিগেট অংশ নেবেন। এ ছাড়া দেশি-বিদেশি আমন্ত্রিত অতিথি মিলিয়ে ৫০ হাজার মানুষের সমাগম ঘটবে সম্মেলনে।


মন্তব্য