kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নতুন নেতৃত্বের আশায় বুক বেঁধেছে তরুণরা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:২১



নতুন নেতৃত্বের আশায় বুক বেঁধেছে তরুণরা

আওয়ামী লীগের সম্মেলন নিয়ে দলের তরুণ সদস্যরা ব্যাপক উজ্জীবিত। আগামী দিনের দায়িত্ব আসতে পারে- এমন আশায় বুক বেঁধেছেন তারা।

তরুণদের আশা, দলের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ফোরাম কার্যনির্বাহী সংসদে একটি পদ পাওয়া। বিশেষ করে দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন কমিটিতে তরুণদের প্রাধান্য দেবেন- এমন ইঙ্গিত পেয়ে দৌড়ঝাঁপ শুরু করে তরুণরা। অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর ওই ইঙ্গিতে পদ হারানোর ভয় ঢুকেছে অনেক জ্যেষ্ঠ নেতার মধ্যে। আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, বরাবরের মতো এবারও নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে কেন্দ্রীয় কমিটি হবে, এমন ধারণা ছিল নেতাদের। সেই হিসাব করে বর্তমান কমিটির নেতাদের কেউ পদ ধরে রাখার, কেউ বা পদোন্নতির আশায় ছিলেন। কিন্তু গত ১৫ অক্টোবর জাতীয় কমিটির বৈঠকে শেখ হাসিনার একটি মন্তব্যের পর সেই হিসাব পাল্টে যায়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ওই বৈঠকে কয়েক নেতাকে উদ্দেশ করে বলেন, আপনারা এত তরুণ বয়সে নেতা হয়েছেন। এবার তরুণরাই নেতা হোক, কী বলেন? তা ছাড়া এখনই তো চারা গাছ রোপণের সময়। প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় ও তাজউদ্দিন আহমেদের ছেলে তানজীম আহমেদ সোহেল তাজের কেন্দ্রীয় কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদ পেতে পারেন, এমন খবরে তরুণদের উৎসাহ আরও বেড়েছে। তারা মনে করছেন, এই দুজন পদ পেলে কাজ করার জন্য তারা তরুণদেরই বেছে নেবেন।

তবে দৌড়ঝাঁপ করলেও পদপ্রত্যাশী তরুণরা গণমাধ্যমে কথা বলতে রাজি নন। নেতৃত্ব পাওয়ার আগে কথা বললে সেটা ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে বলে মনে করছেন তারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বর্তমান উপকমিটির সহসম্পাদক ও ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বলেন, দলীয় সভাপতি তরুণ নেতৃত্ব চান, এমনটা আমরা জেনেছি। আর তরুণদের নেতৃত্ব দিলে ছাত্রলীগের সাবেক নেতারা প্রাধান্য পাবেন বলে আমরা মনে করি।

নতুন কমিটিতে তরুণ নেতৃত্ব প্রাধান্য পাবে, এমন ইঙ্গিত দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, কাউন্সিলের মাধ্যমে আগামী দিনের জন্য আওয়ামী লীগের শক্তিশালী ও দক্ষ নেতৃত্ব নির্বাচিত হবে। এ ক্ষেত্রে আমরা তরুণ নেতৃত্বকেই ‍গুরুত্ব দিতে চাই। কারণ, তরুণরা চিন্তা ও চেতনায় দৃঢ়। তরুণ নেতৃত্বের মধ্য দিয়ে নতুন সংকল্প নিয়ে দল এগিয়ে যাবে, এটাই আমরা চাই।

 


মন্তব্য