kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিজের ভেরিফাইড পেইজে সাড়া দিচ্ছেন তারানা হালিম

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:৫২



নিজের ভেরিফাইড পেইজে সাড়া দিচ্ছেন তারানা হালিম

নিজের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে নিয়মিতই নানা ধরনের অনুরোধ পেয়ে থাকেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম। সে সবে সাধ্যমতো সাড়াও দিয়ে থাকেন তিনি।

এমনিভাবে ফেসবুক পেইজে একজনের অনুরোধের প্রেক্ষিতে মেহেরপুরে টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার নির্মাণ করা হয়েছে এবং শিগগিরই তা উদ্বোধন করা হবে। আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর বনানীতে টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রতিমন্ত্রী নিজেই এ কথা জানিয়েছেন। তারানা হালিম বলেন, আমার ফেসবুক পেইজে তরিকুল ইসলাম মেহেরপুরে টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার নির্মাণের অনুরোধ করেন। তারই অনুরোধের প্রেক্ষিতে এরই মধ্যে এটি নির্মাণ করা হয়েছে এবং শিগগিরই উদ্বোধন করা হবে।

এ ছাড়া শরীয়তপুর জেলা সদরে টেলিটকের থ্রি জি নেটওয়ার্ক শক্তিশালী করার জন্য অনুরোধ করেছেন মেহেদী হাসান। এ লক্ষ্যে টেলিটকের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে উদ্যোগ নেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন বলে যোগ করেন তারানা হালিম। তারানা হালিম জানান, টেলিটক এখন পরিকল্পনা অনুযায়ী চলছে। দায়িত্বগ্রহণের ১ বছরের মধ্যে টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার ৮২টি থেকে ৯১টিতে উন্নীত করেছি। আগামী ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ সংখ্যা ১০২টা করার লক্ষ্য রয়েছে। এ হিসাবে প্রতিমাসে ৩টি কাস্টমার কেয়ার সেন্টার নির্মাণ করতে হবে। যা গত মাসে ৩টি করা হয়েছে। এ ছাড়া চলতি মাসেও হবে। এরই মধ্যে চলতি মাসের ৩টির মধ্যে বনানীতে আজকে একটি উদ্বোধন করা হয়েছে। আর বাকি দুটি নেত্রকোনা ও খাগরাছড়ি উদ্বোধন করা হবে।

এদিকে দায়িত্বগ্রহণের ১ বছরের মধ্যে টেলিটকের ৩৮ হাজার রিটেইলার ৫২ হাজারে উন্নীত হয়েছে বলে জানান তারানা হালিম। যা আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে ৭২ হাজারে উন্নীত করার লক্ষ্য রয়েছে। তারানা হালিম জানান, টেলিটকের নিজস্ব অর্থায়নে ৭০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প চালু আছে। এ প্রকল্পের ২টি লটের কাজ আগামী জানুয়ারির মধ্যে মোটামুটি শেষ হয়ে যাবে। তাহলে উপজেলা পর্যায়ে থ্রি জি নেটওয়ার্ক প্রদানে সক্ষমতা আসবে। এ ছাড়া ৩২০০ কোটি টাকার একটি প্রকল্প রয়েছে। যা পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে টেলিটকের নেটওয়ার্ক শুধু চিন্তার কারণ। তবে প্রকল্প দুটির কাজ শেষ হলে এ সমস্যা কেটে যাবে।

 


মন্তব্য