kalerkantho


খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিকে বিতর্কিত করলে ব্যবস্থা : খাদ্যমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১৩:৩২



খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিকে বিতর্কিত করলে ব্যবস্থা : খাদ্যমন্ত্রী

হতদরিদ্রদের ১০ টাকা দরে চাল বিতরণ কর্মসূচিতে অনিয়ম-দুর্নীতির জন্য ১১টি ফৌজদারি মামলা ও ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সঙ্গে ডিলারদের জরিমানা, ডিলারশিপ বাতিল ও খাদ্য কর্মকর্তাদের বদলী করা হয়েছে। সচিবালয়ে আজ মঙ্গলবার খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির অনিয়ম নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম এ সব তথ্য জানান। মন্ত্রী বলেন, খাদ্যবান্ধব কর্মসূচিতে অনিয়ম-দুর্নীতির জন্য ১১টি ফৌজদারি মামলা হয়েছে। এতে আসামির সংখ্যা ২২ জন। এর মধ্যে ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

এ ছাড়া কর্মসূচির চালের ওজনে কম দেওয়ায় ৯ জন ডিলারকে জরিমানা, অনিয়মের জন্য ৪৪ জনের ডিলারশিপ বাতিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে কর্মসূচিতে অনিয়মের জন্য নলিতাবাড়ী ও নান্দাইল উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক এবং কালোবাজারিতে সহায়তার অভিযোগে সরিষাবাড়ী ও মেলান্দহ গুদামের (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তাকে বদলী করা হয়েছে। এদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় ইউনিয়ন পর্যায়ে কার্ডের মাধ্যমে হতদরিদ্র পরিবারকে ১০ টাকা কেজি দরে মাসে ৩০ কেজি চাল বিতরণ করছে সরকার।

গত ৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী উপজেলায় এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ৫০ লাখ হতদরিদ্র পরিবারকে বছরের মার্চ, এপ্রিল, সেপ্টেম্বর, অক্টোবর, নভেম্বর এ পাঁচ মাস এ সহায়তা দেওয়া হবে। কিন্তু শুরু থেকেই হতদরিদ্রদের তালিকা করা, ডিলার নিয়োগ ও চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠে।

বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ থেকে জানা গেছে, হতদরিদ্রের নামে স্বচ্ছল ব্যক্তিরা এ চাল নিচ্ছেন ও কর্মসূচির চাল বাইরে বিক্রি হচ্ছে, ওজনে কম দেওয়া হচ্ছে। এ প্রেক্ষিতে খাদ্য মন্ত্রণালয় গত ৯ অক্টোবর এসব অভিযোগ সরেজমিন যাচাই করে দেখতে আট বিভাগে আটটি তদন্ত টিম গঠন করেছে। ১৬ অক্টোবরের মধ্যে তদন্ত টিমগুলোর সুপারিশ সম্বলিত প্রতিবেদন মন্ত্রণালয়ে দাখিল করার কথা।

 


মন্তব্য