kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


অধ্যাপক হত‌্যারহস্য উদঘাটিত : র‍্যাবের দাবি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ১১:২২



অধ্যাপক হত‌্যারহস্য উদঘাটিত : র‍্যাবের দাবি

ইডেন কলেজের সাবেক অধ্যাপক আলী হোসেন মালিক হত্যায় সরাসরি জড়িত তিনজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়ে র‌্যাব বলেছে, তারা ওই হত‌্যারহস্য উদঘাটন করতে পেরেছে। গ্রেপ্তার তিনজন হলেন গাড়িচালক মাসুদ, গৃহ পরিচারক সাইফুল এবং সুজন নামের এক যুবক।

র‌্যাব ৪ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইব্রাহীম খলিল জানান, সোমবার বেলা ১১টার দিকে বরিশালের গৌরনদী থেকে সাইফুল ও সুজনকে তারা গ্রেপ্তার করেন। পরে রাত ১০টার দিকে ঢাকার ভাষানটেক থেকে ধরা হয় মাসুদকে। র‌্যাব কর্মকর্তা ইব্রাহীম খলিল জানান, তারা সাইফুল ও সুজনের কাছ থেকে ১ লাখ ২৭ হাজার ৮৩২ টাকা উদ্ধার করেছেন, যা অধ‌্যাপক আলী হোসেন মালিককে হত‌্য‌ার পর লুট করা হয়েছিল।

ঢাকার ওল্ড ডিওএইচএসের ২ নম্বর রোডের ৫৩/এ নম্বর বাড়ি থেকে গত ১১ অক্টোবর সকালে আলী হোসেনের (৬৮) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। হাত, পা ও মুখ বাঁধা এই সাবেক শিক্ষকের শরীরে ছুরির আঘাতের চিহ্ন পাওয়ার কথা সে সময় জানিয়েছিলেন ভাষানটেক থানার এসআই আশিক ইকবাল। আলী হোসেন সর্বশেষ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ছিলেন। এর আগে বিভিন্ন সরকারি কলেজে শিক্ষকতা করেছেন তিনি।

লাশ উদ্ধারের পর পুলিশ জানিয়েছিল, ওল্ড ডিওএইচএসের ওই বাড়ি আলী হোসেনের নয়। বাড়ির মালিক মো. বাবলুর ছেলে মালয়েশিয়ায় যাওয়ায় খালি বাসা দেখাশোনার দায়িত্ব নিয়েছিলেন আলী হোসেন। তার পরিবার থাকে মিরপুর ১০ এলাকায়। র‌্যাব কর্মকর্তা ইব্রাহীম খলিল বলেন, আলী হোসেনকে হত‌্যার পর ওল্ড ডিওএইচএসের ওই বাসা থেকে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন লুট হয়েছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক তিনজন স্বীকার করেছে, টাকা লুটের জন‌্যই তারা এই হত‌্য‌াকাণ্ড ঘটিয়েছে।

ইব্রাহীম খলিল জানান, সাইফুল হত‌্যাকাণ্ডের দুই দিন আগে গৌরনদী থেকে সুজনকে এনে ওই বাসায় রাখে। আলী হোসেনকে সে সময় বলা হয়, সুজন জাতীয় পরিচয়পত্র নিতে এসেছে, দুই দিন পরই চলে যাবে। আলী হোসেন খুন হওয়ার পর ওই বাসার কেয়ারটেকার সেলিম মিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ইতিমধ‌্যে তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

 


মন্তব্য