kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চীন, শ্রীলংকা ও মালদ্বীপে নতুন ৪ রুট সম্প্রসারণের পরিকল্পনা বিমানের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:৩৫



চীন, শ্রীলংকা ও মালদ্বীপে নতুন ৪ রুট সম্প্রসারণের পরিকল্পনা বিমানের

আগামী বছর মার্চ মাস থেকে চীন, শ্রীলংকা ও মালদ্বীপে চারটি নতুন রুট সম্প্রসারণের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স।
বিমান’র মহাব্যবস্থাপক শাকিল মেরাজ বলেন, ‘আমরা চীনের কুনমিং ও গুয়াংঝুউ-এ দু’টি এবং শ্রীলংকার কলম্বো ও মালদ্বীপের মালে-তে একটি করে মোট চারটি রুট চালু করব।


তিনি জানান, আগামী গ্রীষ্মে তথা ২৮ মার্চ থেকে ওইসব রুটে বিমানের যাত্রী পরিবহনের সম্ভাবনা রয়েছে।
এক প্রশ্নের জবাবে মেরাজ জানান, বিমানের বর্তমানে সর্বাধুনিক ১২টি বোয়িং এয়ারক্রাফট রয়েছে, যার মাধ্যমে আরো বেশি ফ্লাইট চালানো যেতে পারে।
অন্যদিকে রাষ্ট্রায়ত্ত এই সংস্থাটি বর্তমান বছরের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে আরো দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট লীজ গ্রহণের জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করেছে।
গত মাসে পুরনো দু’টি এয়ারক্রাফট এয়ারবাস এ৩১০-৩০০ অকেজো হয়ে যাওয়ায় নতুন দু’টি এয়ারক্রাফট সংযোজন করা হচ্ছে।
শাকিল মেরাজ জানান, ‘দীর্ঘ সময়ের’ জন্য দু’টি বোয়িং ৭৩৭-৮০০ এয়ারক্রাফট লীজ গ্রহণের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
‘চলতি বছর ডিসেম্বরের মধ্যেই আমরা লীজ গ্রহণের প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে পারবে’ তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন।
তিনি জানান, বিমান বাংলাদেশ’র প্রস্তাব (আরপিপি) আহ্বানের পর বেশ কয়েকটি কোম্পানি তাদের প্রস্তাব পেশ করেছে। ‘আমরা এখন প্রস্তাবগুলো মূল্যায়ন করছি এবং যোগ্য প্রস্তাবটি শিগগির উপস্থাপন করা হবে’ যোগ করেন তিনি।
নতুন দু’টির উড্ডয়নের মাধ্যমে বিমানের এয়ারক্রাফটের মোট সংখ্যা দাঁড়াবে ১৪টিতে।
বিমানের মহাব্যবস্থাপক বলেন, ‘বর্তমানে বিমান আরো নতুন, আরো শক্তিশালী। ’
এছাড়া বিমানের উড়োজাহাজ বহরে ২০১৯ সালে দু’টি আধুনিক ও সর্বশেষ প্রযুক্তির বোয়িং ৭৮৭ ড্রিমলাইনার্স সংযুক্তির জন্য চুক্তি করা হয়েছে।
মেরাজ বলেন, ড্রিমলাইনার্স শক্তিশালী বিমান এবং তা দূরবর্তী রুটে চলাচলের জন্য উপযোগী হবে।
তিনিা জানান, ড্রিমলাইনার্স নিউইয়র্ক ও সিডনীর মতো দূরবর্তী রুটে যাত্রী বহন করবে।


মন্তব্য