kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হাত ধোয়াসহ স্বাস্থ্যসম্মতভাবে চলতে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩৩



হাত ধোয়াসহ স্বাস্থ্যসম্মতভাবে চলতে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন শিক্ষার্থীদের জীবনমান উন্নয়নে সঠিক নিয়মে হাত ধোয়াসহ স্বাস্থ্যসম্মতভাবে চলতে উদ্বুদ্ধ করতে শিক্ষক ও অভিবভাকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।  
খন্দকার মোশাররফ হোসেন আজ শনিবার রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন চত্বরে বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস-২০১৬ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন।

 
চলতি বছর দিবসটির মূল প্রতিপাদ্য-‘হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়ি’।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, “উন্নত স্যানিটেশন ব্যবস্থা ও বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ ব্যবস্থা নিশ্চিত করা গেলে আগামি প্রজন্মের মারাত্মক সব সংক্রামক রোগের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব। সেজন্য পরিবারের প্রতিটি সদস্য যাতে স্বাস্থ্যসম্মত ল্যাট্রিন ব্যবহার করে ও টয়লেট ব্যবহারের পর সাবান দিয়ে হাত পরিস্কার করে সেই দিকে সবাইকে লক্ষ্য রাকতে হবে। স্বাস্থ্য সম্মতভাবে চলে নিজের আয়ু বৃদ্ধিতে ভুমিকা পালন করতে হবে। ”
স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রনালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব বেগম নাসরিন আক্তার।  
এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন স্থানীয় সরকার পল্লি উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল মালেক, ইউনিসেফ বাংলাদেশের ভারপ্রাপ্ত প্রতিনিধি ডিযডুলা মাসাকি। স্বাগত বক্তব্য দেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মো. ওয়ালী উল্লাহ।
বক্তৃতা শেষে মন্ত্রী ও অন্যান্য অতিথিরা বেলুন উড়িয়ে দিবসটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করেন।
এরপর নারায়ণগঞ্জের সিকদার অ.মালেক উচ্চবিদ্যালয়সহ রাজধানীর বিভিন্ন বিদ্যালয় থেকে আগত শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সাবান ও পানি ব্যবহার করে হাত ধোয়া হয়।
পরে অনুষ্ঠানের শেষ ভাগে চলতি বছরের প্রতিপাদ্য- ‘হাত ধোয়ার অভ্যাস গড়ি’- উচ্চারণ করে হাত উঠিয়ে শিক্ষার্থীদের শপথ বাক্য পাঠ করানো হয়।
মন্ত্রী বলেন, হাত ধোয়ার সুফল পেতে সঠিক সময়ে যেমন খাবার আগে ও টয়লেটের পর হাতধোয়ার অভ্যাস গড়তে হবে। সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস রোগ প্রতিরোধ সবচেয়ে সহজ, কার্যকর ও সাশ্রয়ি উপায় হিসেবে বিবেচিত। আর বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস হচ্ছে সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার গুরুত্ব সম্পর্কে সকলের মাঝে সচেতনতা তৈরীর প্রচারনার একটি দিন।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ও সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার অভ্যাস সুস্থ, স্বাভাবিক ও সুন্দর জীবনের জন্য অপরিহার্য। শুধু খাবার আগে ও টয়লেট ব্যবহারের পর সঠিক নিয়মে হাত ধোয়ার অভ্যাস সহজেই পানিবাহিত নানা ধরনের সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ করতে পারে। প্রাত্যহিক জীবনে এর গুরুত্ব বুঝে তা মেনে চলা উচিত।
স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়ন সুস্থভাবে বাচার জন্য অপরিহার্য উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী অনুষ্ঠানে আরও বলেন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার অংশ হিসেবে হাত ধোয়া ও পরিস্কার রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কাজ। এটা পরিচ্ছন্নতার প্রাথমিক ধাপ। আমরা অক্টোবর মাসকে স্যানিটেশন মাস হিসেবে পালন করছি।  
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেস্টায় স্যানিটেশন কভারেরজের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের ব্যাপক উন্নতি হয়েছে। এই উপমহাদেশে এখন শ্রীলংকার পরে আমাদের অবস্থান, অর্থাৎ দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছি। বাংলাদেশে এখন উন্মুক্ত স্থানে মল-মূত্র ত্যাগ বন্ধ হয়েছে। জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরসহ সরকারি-বেসরকারি সংস্থার সহযোগিতায় এসব বিষয়ে ব্যাপক সচেতনতা সৃষ্টি, উন্নত ল্যাট্রিন ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী স্যানিটেশন ও সুপেয় পানি প্রাপ্তির সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন সীমাবদ্ধতা থাকলেও সরকার এর উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, আমরা দেশে এখন ভূগর্ভস্থ পানি সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করছি। ব্যবহৃত পানির মধ্যে শতকরা ৮০ ভাগ ভূ-গর্ভস্থ ও ২০ ভাগ পানি ভূ-উপরিস্থ। আমদেরকে এই অবস্থার ঠিক বিপরিত অবস্থায় উপনীত হবে। ভুগর্ভস্থ পানির বেশি ব্যবহার হলে পানির স্তর নিচে নেমে যায়। এর প্রেক্ষিতে জমিতে শুষ্কতা ও উর্বরা শক্তি কমে যায়। তিনি হারিয়ে যাওয়া জলাধার পুনুরুদ্ধার ও বিদ্যমান জলাধার সংরক্ষনের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।  
মন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্য ও স্যানিটেশন ক্ষেত্রে আমাদের ব্যাপক অগ্রগতির কারণেই গড় আয়ু বেড়েছে।  
অনুষ্ঠানস্থনে ‘উন্নত স্যানিটেশন সুস্থ জীবন’, ‘সাবান দিয়ে হাত ধোব, রোগ ব্যাধি মুক্ত হবো’, ‘খাওয়ার আগে আর টয়লেটের পরে হাত ধুয়ে নিন ভাল করে’, ‘নিয়মিত ল্যাট্রিন পরিস্কার রাখি, রোগ ব্যাধি থেকে দূরে থাকি’সহ বিভিন্ন সচেতনতামূলক শ্লোগান প্রদর্শন করা হয়।


মন্তব্য