kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস পালিত

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ২৩:৩০



ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস পালিত

ভাবগম্ভীর পরিবেশে আজ শনিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শোক দিবস পালিত হয়েছে।  
১৯৮৫ সালের ১৫ অক্টোবর রাতে জগন্নাথ হলে সংঘটিত মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় যে সকল ছাত্র, কর্মচারী ও অতিথি নিহত হয়েছিলেন তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য প্রতি বছর দিবসটি পালন করা হয়।

 
এ উপলক্ষে সকাল ৬টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হল ও প্রধান প্রধান ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন, বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা অর্ধনমিত রাখা ও কালো ব্যাজ ধারণ করা হয়।  
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের নেতৃত্বে সকাল সাড়ে ৭টায় অপরাজেয় বাংলার পাদদেশ থেকে শোক মিছিল সহকারে ছাত্র-শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ জগন্নাথ হল ‘স্মৃতি অক্টোবর’ স্মারক স্তম্ভে গিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।  
পরে জগন্নাথ হল অক্টোবর স্মৃতিভবনস্থ টিভি কক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  
উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সংসদ সদস্য পঙ্কজ নাথ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি এ্যাডভোকেট মোল্লা আবু কাওসার ও সাধারণ সম্পাদক রঞ্জন কর্মকার, জগন্নাথ হল অ্যালামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি পান্না লাল দত্ত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা প্রাতিষ্ঠানিক ইউনিটের আহ্বায়ক অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন, হলের প্রাক্তন প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. জগদীশ চন্দ্র শুক্লদাস। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. অসীম সরকার এবং আলোচনা সভা সঞ্চালন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান।
উপাচার্য প্রথমেই দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র ও অতিথিদের প্রতি শ্রদ্ধা এবং আহতদের প্রতি সমবেদনা জানান। তিনি বলেন, ১৫ অক্টোবর শোক দিবস আমাদের দায়িত্বশীলতা, কর্তব্যপরায়ণতা, উদারতা এবং মানবিকতার তাগিদ দিয়ে যায়। এই দিবসের তাৎপর্য আমাদের কাছে অত্যন্ত কার্যকর, ১৫ অক্টোবর এই শোক দিবস শিক্ষা দেয় দুর্যোগ সতর্কতার জন্য, তাই এই দিবসকে বিশ্ববিদ্যালয় সংরক্ষণ দিবস হিসেবে আমরা অভিহিত করে থাকি।  
তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ঝুঁকিপূর্ণ অনেক প্রাচীন ভবন রয়েছে, সে ভবনগুলো সম্পর্কে আমাদের সচেতনতা ও সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। ঝুঁকি নিরসনে কিছু সংস্কার কাজ চলছে এবং কিছু হাতে নেয়া হয়েছে।  
তিনি বলেন, আমাদের যার যার অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করলে সকল দুর্যোগ থেকে আমরা রক্ষা পেতে পারি। দায়িত্বহীনতার কারণে অনেক দুঃখজনক ঘটনার সৃষ্টি হয়। উপাচার্য চীনা দার্শনিক কনফুসিয়াসের একটি উক্তি উদ্বৃত করে বলেন, ‘যে কাজটি কর, তোমার হৃদয় দিয়ে কর। ’
শোক দিবস উপলক্ষে উপাসনালয় ও মসজিদসমূহে প্রার্থনা সভা ও নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত, নিহতদের তৈলচিত্র ও তৎসম্পর্কিত দ্রব্যাদি প্রদর্শন, জগন্নাথ হল প্রাঙ্গণে রক্তদান কর্মসূচি পালন করা হয়।
এছাড়া সন্ধ্যায় জগন্নাথ হল উপাসনালয়ে ভক্তিমূলক গানের অনুষ্ঠান (শোক সঙ্গীত ও কবিতা আবৃত্তি) অনুষ্ঠিত হবে।  
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আজ একথা বলা হয়।  


মন্তব্য