kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এখনও সংজ্ঞাহীন খাদিজা, উদ্বেগ কাটেনি পরিবারের

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১০:০৬



এখনও সংজ্ঞাহীন খাদিজা, উদ্বেগ কাটেনি পরিবারের

ছাত্রলীগ নেতার হামলায় আহত হওয়ার ১০ দিন পর কলেজছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিস লাইফ সাপোর্ট ছাড়াই সাড়া দিচ্ছেন বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানালেও এখনও সংজ্ঞা না ফেরায় উদ্বেগ কাটেনি তার পরিবারের সদস্যদের। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

তবে লাইফ সাপোর্ট ছাড়া সাড়া দিলেও আহত হওয়ার পর প্রায় দুই সপ্তাহেও পুরোপুরি জ্ঞান ফেরেনি সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের এই ছাত্রীর; ফলে পরিবারের কোনো সদস্য তার সঙ্গে কথা বলতে পারেননি বলে জানান খাদিজার মামা আব্দুল বাসেত।

হাসপাতালে তিনি বলেন, খাদিজার অবস্থার তেমন কোনো উন্নতি হয়নি, আগের মতোই আছে। তবে হাসপাতালের দেওয়া চিকিৎসা ব্যবস্থায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন তিনি। এর আগে বৃহস্পতিবার হাসপাতাল পরিদর্শনে এসে চিকিৎসাধীন থাকা খাদিজার অবস্থার উন্নতির ফলে লাইফ সাপোর্ট খুলে দেওয়ার কথা জানিয়ে তার চিকিৎসার সব ব্যয় সরকার বহন করবে বলে নিশ্চয়তা দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।

গত ৩ অক্টোবর সিলেটে হামলার শিকার হওয়ার পর ঢাকায় এনে স্কয়ার হাসপাতালে ৪ অক্টোবর বিকালে খাদিজার অস্ত্রোপচার হয়। এরপর ৭২ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ করে গত ৮ অক্টোবর তার শারীরিক অবস্থা সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। ওই সময় হাসপাতালটির নিউরো সার্জন রেজাউস সাত্তার জানিয়েছিলেন, হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে সম্পূর্ণ কনশাস না হলেও ব্যথা পেলে খাদিজা সাড়া দিচ্ছিলেন। ব্যথা পেলে সাড়া দেওয়ার মতো ওই উন্নতির কথা জানালেও এই কলেজছাত্রী সম্পূর্ণ স্বাভাবিক হয়ে উঠতে পারবেন কি না- তা জানতে আরও দু-তিন সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হবে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী খাদিজা এমসি কলেজে স্নাতক পরীক্ষা দিয়ে বেরিয়ে আসার পর হামলার শিকার হন। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহসম্পাদক বদরুল আলম ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মাথাসহ বিভিন্ন স্থানে এলোপাতাড়ি কোপায়, যাতে খুলি ভেদ করে তার মস্তিষ্কও জখম হয়। হামলার পরপর জনতার হাতে আটক হামলাকারী বদরুল ইতিমধ্যে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

 


মন্তব্য