kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ ব্যতীত পণ্য উৎপাদনের বিকল্প নেই'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:০৮



'আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ ব্যতীত পণ্য উৎপাদনের বিকল্প নেই'

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত করার স্বপ্ন পূরণে ‘আন্তর্জাতিক মান’ অনুসরণ ব্যতীত পণ্য উৎপাদনের বিকল্প নেই।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের জন্য ঘোষিত ‘রূপকল্প-২০২১’ বাস্তবায়নের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিতে ইতিবাচক পরিবর্তন আনয়নের ক্ষেত্রে পণ্য ও সেবার গুণগতমান নিশ্চিত করা জরুরি।


আগামীকাল বিশ্ব মান দিবস উপলক্ষে আজ দেয়া এক বাণীতে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।
আন্তর্জাতিক মান সংস্থা-আইএসও (ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর স্ট্যার্ন্ডাডাইজেশন), আইইসি (ইন্টারন্যাশনাল ইলেক্ট্রোটেকনিকেল কমিশন) ও আইটিইউ (ইন্টারন্যাশনাল টেলিকমিউনিকেশন ইউনিয়ন) দ্বারা নির্ধারিত এ বছরের প্রতিপাদ্য ‘মান আস্থা সৃষ্টি করে’ অত্যন্ত সময়োপযোগী হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বায়নের যুগে মান সম্পন্ন পণ্য কিংবা সেবা মুহুর্তের মধ্যে পৌঁছে যায় প্রচারের শীর্ষে। স্থানীয় পর্যায় থেকে বিশ্ববাজারে প্রতিষ্ঠা করে নেয় একচ্ছত্র চাহিদা।
তিনি বলেন, এ কারণে আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করে উৎপাদিত পণ্য ও সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান আন্তর্জাতিক বাজারে আস্থার প্রতীক হিসেবে অধিকতর সমাদৃত হচ্ছে।  
বিশ্বায়নের এ যুগে সকলের জন্য নিরাপদ ও বিশ্বাসযোগ্য পৃথিবী গড়তে আন্তর্জাতিক ‘মান’ এর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশসমূহের খ্যাতনামা বৈজ্ঞানিক, প্রযুক্তিবিদ এবং বিশেষজ্ঞগণ নিরলস পরিশ্রম করে সকলের নিকট গ্রহণযোগ্য আন্তর্জাতিক মান ও নীতিমালা তৈরি করে যাচ্ছে।
শেখ হাসিনা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে কোনো পণ্য উৎপাদনের ক্ষেত্রে দেশীয় পদ্ধতির কথা বলতেন। কিন্তু মান বিবেচনার ক্ষেত্রে তিনি উৎপাদিত পণ্যের আন্তর্জাতিক মান অক্ষুণœ রাখার বিষয়েও গুরুত্বারোপ করতেন।
তিনি বলেন, এ লক্ষ্য অর্জনে জাতির পিতার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ১৯৭৪ সালে তৎকালীন মান সংস্থা (বিডিএসআই) আইএসও এর সদস্যপদ লাভ করে।
বিএসটিআই আন্তর্জাতিক মান অনুসরণ করে জাতীয় মান নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী এ সংস্থার কাছে- জাতীয় স্বার্থে জনগণের মধ্যে আস্থা সৃষ্টি করতে মানসম্পন্ন সেবা সকলের নিকট পৌঁছে দেবে-এমনটাই প্রত্যাশা করেন।
বিশ্বের অন্যান্য দেশের ন্যায় বাংলাদেশেও বিএসটিআই এর উদ্যোগে আগামীকাল ‘বিশ্ব মান দিবস’ পালিত হচ্ছে জেনে তিনি আনন্দিত বলেও উল্লেখ করেন।


মন্তব্য