kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বসুন্ধরা পূজামণ্ডপে আইজিপি

দুর্গোৎসবে সব ধর্মের মানুষই শামিল হচ্ছে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ অক্টোবর, ২০১৬ ০১:০৯



দুর্গোৎসবে সব ধর্মের মানুষই শামিল হচ্ছে

দুর্গাপূজার অনুষ্ঠান কোনো গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ে সীমাবদ্ধ নয়। এতে সব ধর্ম ও সম্প্রদায়ের মানুষই শামিল হচ্ছে।

এটি সত্যিই সর্বজনীন উৎসবে রূপ নিয়েছে। ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনায় দেশের ২৯ হাজার ৩৪০টি মণ্ডপে পূজানুষ্ঠান হচ্ছে।
গতকাল রবিবার রাতে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় বসুন্ধরা সর্বজনীন পূজা কমিটি আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক এ কথা বলেন।

বসুন্ধরায় দুর্গোৎসবের পৃষ্ঠপোষক বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর ও তাঁর স্ত্রী সাবরিনা সোবহান অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

আইজিপি বলেন, দেশে মাঝেমধ্যে অশুভ শক্তির উত্থানের চেষ্টা  হয়। কিন্তু জনগণের সহযোগিতায় এসব অশুভ শক্তিকে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দমন করছে। জঙ্গিরা তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারেনি। তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অনেক ভালো হয়েছে। জনগণের সহযোগিতা ছাড়া পুলিশ বাহিনীর পক্ষে কাজ করা অসম্ভব। সব সময় জনগণকে পাশে থাকার আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, দুর্গাপূজা সর্বজনীন উৎসব। ঢাকায় ২২৬টি পূজামণ্ডপ রয়েছে। সবখানে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। বিসর্জনের দিনও নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকবে।

ভারতীয় হাইকমিশনের কাউন্সিলর রাজেশ মিত্র বলেন, ‘আমি ভীষণ খুশি। দুর্গাপূজার মতো একটি সর্বজনীন উৎসব হচ্ছে বিপুলসংখ্যক মণ্ডপে। নিরাপদে ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যে এ উৎসব উদ্‌যাপিত হচ্ছে। '

কাউন্সিলর বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদির মধ্যে খুব ভালো সম্পর্ক রয়েছে। তাঁদের মধ্যে রাজনৈতিক সমঝোতা রয়েছে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমন এবং সামাজিক উন্নয়নে দুই দেশ একসঙ্গে কাজ করছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম, পুলিশের ডিআইজি (প্রশাসন) বিনয়কৃষ্ঞ বালা, রংধনু গ্রুপের চেয়ারম্যান শেখ রফিকুল ইসলাম ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন পূজা কমিটির সভাপতি তপন চন্দ্র ভৌমিক। অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান আয়োজকরা। আলোচনা পর্ব শেষে অতিথিরা পূজামণ্ডপ  পরিদর্শন করেন। যথারীতি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও ছিল।


মন্তব্য