kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে ঢাকা ও বার্লিন আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৮ অক্টোবর, ২০১৬ ২১:৫২



দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে ঢাকা ও বার্লিন আরো ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করবে

ঢাকা ও বার্লিন বিভিন্ন ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি এবং বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস চরম পন্থার মোকাবেলার মাধ্যমে আরো দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার ব্যাপারে সম্মত হয়েছে।
আজ এখানে প্রাপ্ত এক বার্তায় বলা হয়, শুক্রবার বার্লিনে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী এবং জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. ফ্রাঙ্ক ভালটার স্টাইনমায়ারের মধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে তারা এ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।


বৈঠককালে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের টেকসই অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির বিষয় জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে অবহিত করেন এবং জার্মান পক্ষকে বাংলাদেশে তাদের সম্পৃক্ততা বাড়াতে বিশেষ করে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের সুযোগ গ্রহণের আহ্বান জানান।
উভয় মন্ত্রী ইউরোপে চলমান উদ্বাস্তু ও অভিবাসন সংকটসহ পারস্পরিক স্বার্থে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে মতবিনিময় করেন।  
তারা ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য গ্লোবাল ফোরাম ফর মাইগ্রেশন অ্যান্ড ডেভলপমেন্ট (জিএফএমডি) সম্মেলনের প্রসঙ্গ সুশৃঙ্খল অভিবাসন এবং মানুষের যাতায়াতের বিষয় মতবিনিময় করেন।
বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে উষ্ণ ও গভীর সম্পর্কের কথা তুলে ধরে মাহমুদ আলী এই সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে জার্মান চ্যান্সেলর এঞ্জেলা মার্কেলকে বাংলাদেশ সফরের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী বৃহস্পতিবার হ্যামবুর্গে জার্মান-এশিয়া প্যাসেফিক বিজনেস কমিউনিটির (ওএভি) উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে যোগদান করে দু’দিনের জার্মান সফর শুরু করেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আইটি, জাহাজ নির্মাণ, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি, ব্যাংকিং, ফার্মাসিউটিক্যালস, পাটপণ্য এবং তৈরি পোশাকসহ বিভিন্ন খাতে বাংলাদেশে ব্যবসায়ীক স্বার্থ রয়েছে এমন ব্যবসায়ী ব্যক্তিত্বের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত এক মধ্যাহ্ন ভোজ অনুষ্ঠানে যোগ দেন।
পরিসংখ্যান তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে মোট তৈরি পোশাক রফতানির (২০১৫-১৬ অর্থবছরে রফতানি প্রায় ৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) ৮৫ শতাংশের বেশি জার্মানিতে রফতানি করা হয়।
বাংলাদেশের সঙ্গে ১০০ বছরের বেশি সময় ব্যবসায় যুক্ত থাকা পারিবারিক ব্যবসায়িক সমিতির পিটার ক্লসেন স্বাগত বক্তব্য রাখেন এবং ইন্টারেক্টিভ সেশনের সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন। এ সময় জার্মানিতে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আলী সরকার এবং হ্যামবুর্গ ভলটার স্টোকে বাংলাদেশের অনারারি কনস্যুল উপস্থিত ছিলেন।
গাড়িতে প্লাস্টিক উপকরণ ব্যবহারের বিপরীতে পাটপণ্য, ৩-ডি প্রিন্টারের ভিত্তি উপকরণ হিসাবে পাটকাঠি এবং বর্তমানে জীবাণুরোধী প্রাকৃতিক উপকরণসহ পাটের বহুমুখী ব্যবহারে বিভিন্ন উদ্ভাবনী ধারণা বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর মনযোগ আকর্ষণ করে।
দুই সুইডিশ মহিলা উদ্যোক্তা তাদের উদ্ভাবনী ধারণা তুলে ধরেন এবং সম্ভাবনাময় উচ্চমানের পাট পণ্য উৎপাদনে বাংলাদেশে যৌথ উদ্যোগে শিল্প স্থাপনে সহযোগিতা চেয়েছেন।
বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী নতুন এবং উদ্ভাবনী ব্যবসায়িক ধারণাকে স্বাগত জানান এবং বাংলাদেশ ও জার্মানির মধ্যে অব্যাহত বাণিজ্য সম্পর্কের জন্য সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
বৃহস্পতিবার টাউন হলে ফাস্ট মেয়র অব হ্যামবুর্গ ওলাফ স্কল্জের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন এবং পারস্পরিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে মতবিনিময় করেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী জার্মান পার্লামেন্ট পরিদর্শন করেন এবং জার্মান পার্লামেন্টারি গ্রুপে সোস্যাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এসপিডি) পররাষ্ট্র বিষয়ক মুখপাত্র এবং এসপিডি’র কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল পলিটিকস চেয়ারম্যান নিলস এনেন’র সঙ্গে বৈঠক করেন।


মন্তব্য