kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাভারে যুবদলের নেতা হত্যায় ফখরুলের নিন্দা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ১৪:৫৮



সাভারে যুবদলের নেতা হত্যায় ফখরুলের নিন্দা

কথিত বন্দুকযুদ্ধে শনিবার রাতে পুলিশের গুলিতে সাভার পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম নয়ন নিহত হওয়া তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। আজ রবিবার সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান তিনি।

বিবৃতিতে বিএনপি মহাসচিব বলেন, একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন করার দাবি নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যখন দেশের মানুষকে নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখন বর্তমান শাসকগোষ্ঠী বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর নির্যাতনের স্টিম রোলার চালিয়ে যাচ্ছে।

সরকার একদিকে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের হত্যা, গুম, অপহরণ, মিথ্যা মামলা দায়ের, রিমান্ডের নামে নির্যাতন করছে। পাশাপাশি বিরোধী দলের প্রধান নেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করে কারাগারে নিক্ষেপ করছে। ফখরুল আরও বলেন, দেশে বর্তমানে আইনের শাসন ও জনগণের কাছে কোনো জবাবদিহিতা নেই। এ জন্য গায়ের জোরে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা দখল করে দেশকে বিরোধী দল শূন্য করা এবং চিরকাল ক্ষমতা আঁকড়ে রাখতে দলীয় সন্ত্রাসীসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দিয়ে নির্যাতন-নিপীড়ন ও হত্যাকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে তারা।

কথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে নির্বিচারে বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের হত্যা যেন এখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একধরনের খেলায় পরিণত হয়েছে। সাভার পৌর যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম নয়ন সেই নির্মম খেলারই শিকার। এ ধরনের নৃশংস হত্যাকাণ্ডের নিন্দা জানানোর ভাষা জানা নেই।

বিবৃতিতে তিনি আরও বলেন, একটা গণতান্ত্রিক সরকার যখন দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয় তখন নিজে থেকেই ক্ষমতা ছেড়ে দেওয়া উচিত। আর এটাই গণতন্ত্রের মূল চেতনা। কিন্তু বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের ব্যর্থতার দায়ভার এতটাই বেশি যে একদিকে ব্যর্থতা ঢাকতে অন্যদিকে চিরকাল ক্ষমতা আঁকড়ে থাকার লোভ তাদের হিতাহিত জ্ঞানশূন্য করে ফেলেছে। দেশকে এক মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত করা হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে নিহত শাহ আলম নয়নের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান। তিনি শাহ আলম নয়নের হত্যাকারীদের বিরুদ্ধে নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করে তাদের অবিলম্বে বিচারের আওতায় আনারও জোর দাবি করেন।

 


মন্তব্য