kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'শিশুবিবাহ বন্ধ করে কন্যাশিশুদের শিক্ষা ও পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিত করতে হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:০৮



'শিশুবিবাহ বন্ধ করে কন্যাশিশুদের শিক্ষা ও পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিত করতে হবে'

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, শিশুবিবাহ বন্ধ করে কন্যাশিশুদের মানসম্মত শিক্ষা ও পুষ্টির চাহিদা নিশ্চিত করতে হবে।
বর্তমান সরকার কন্যাশিশুদের উন্নয়নে অত্যন্ত আন্তরিক উল্লেখ করে তিনি বলেন, এ লক্ষ্যে সরকার কন্যাশিশুদের শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পুষ্টিসহ পরিপূর্ণ বিকাশে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

যা বহির্বিশ্বেও প্রশংসিত হচ্ছে।
আগামীকাল জাতীয় কন্যাশিশু দিবস উপলক্ষে আজ দেয়া এক বাণীতে রাষ্ট্রপতি এ কথা বলেন।  
‘শিশুবিয়ে বন্ধ করি, সমৃদ্ধ দেশ গড়ি’- এবারের এ প্রতিপাদ্যকে সময়োপযোগী উল্লেখ করে রাষ্ট্রপতি বলেন, অভিভাবকদের সচেতনতার অভাবে অনেক সময় কন্যাশিশুদের একটি অংশ শিশুবিবাহের শিকার হয়। এতে এসব শিশুরা মানসম্মত শিক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হয়। একই সাথে তারা বঞ্চিত হয় আয়ের সুযোগ, আধুনিক প্রযুক্তি ও তথ্য প্রবাহ থেকেও। আর অল্প বয়সে সন্তান জন্ম দিতে গিয়ে এ কিশোরী মায়েরা অনাকাক্ষিত মৃত্যুমুখে পতিত হয়।
এ কারণে কন্যাশিশুদের পুষ্টি চাহিদা নিশ্চিত করা জরুরি উল্লেখ করে তিনি বলেন, একজন সুস্থ নারীই সুস্থ ও সবল সন্তান জন্ম দিতে পারেন এবং কর্মক্ষম হয়ে জাতীয় অর্থনীতিতে বলিষ্ঠ অবদান রাখতে পারেন।
দিবসটি উপলক্ষে দেশের সকল কন্যাশিশুর প্রতি আন্তরিক শুভেচ্ছা ও ভালবাসা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, আজকের কন্যাশিশু আগামী দিনের নারী। তাই প্রতিটি কন্যাশিশুর অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করা আমাদের কর্তব্য।  
তিনি বলেন, তাহলেই একজন শিক্ষিত মা তার সন্তানকে সুশিক্ষিত করে গড়ে তুলতে পারেন, যা রাষ্ট্রে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মকে সুস্থ ও শিক্ষিতভাবে গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখবে।
জাতীয় কন্যাশিশু দিবস ২০১৬ উপলক্ষে গৃহীত কর্মসূচির সাফল্য কামনা করে রাষ্ট্রপতি বলেন, শিশুবিবাহ বন্ধে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি এবং কন্যাশিশুদের অধিকার ও নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণই হোক-এবারের জাতীয় কন্যাশিশু দিবসের অঙ্গীকার।


মন্তব্য