kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সংসদে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল বিল-২০১৬ উত্থাপন

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:৫৪



সংসদে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল বিল-২০১৬ উত্থাপন

জাতীয় সংসদে আজ বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল বিল-২০১৬ উত্থাপন করা হয়েছে।
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিলটি উত্থাপন করেন।


বিলে বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিল নামে একটি কাউন্সিল গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। স্বাস্থ্য সচিবকে সভাপতি করে এ কাউন্সিল ২১ সদস্যবিশিষ্ট করারও প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিলে কাউন্সিলের রেজিস্ট্রার, কর্মকর্তা-কর্মচারী নিয়োগ, কাউন্সিলের তহবিল, বাজেট, হিসাবরক্ষণ ও নিরীক্ষা, প্রতিবেদন, নার্সিং শিক্ষার যোগ্যতার ডিপ্লোমা বা স্নাতক ডিগ্রির স্বীকৃতি, মিডওয়াইফারির শিক্ষার স্বীকৃতি, নিবন্ধনযোগ্য সহযোগী পেশার শিক্ষা যোগ্যতার স্বীকৃতি, স্বীকৃতি প্রত্যাহার, নিবন্ধন বাতিল ও রেজিস্ট্রার থেকে নাম প্রত্যাহারসহ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিলে কাউন্সিলের সভাপতি, সহ-সভাপতি এবং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে নির্বাচিত ৫ সদস্যসহ মোট ৭ জন সদস্যের সমন্বয়ে নির্বাহী কমিটি গঠনের প্রস্তাব করা হয়েছে। পাশাপাশি কাউন্সিল এর কাজে সহায়তার জন্য প্রয়োজনবোধে এক বা একাধিক কমিটি গঠনেরও বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।
এছাড়া বিলে নিবন্ধন ব্যতিত নার্সিং বা মিডওয়াইফারি অথবা সহযোগীর পেশা গ্রহণ নিষিদ্ধ, স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান ব্যতিরেকে শিক্ষা কার্যক্রম নিষিদ্ধের বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিলে ভুয়া পদবি ব্যবহার, প্রতারণামূলক প্রতিনিধিত্ব বা নিবন্ধনকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করে সুনির্দিষ্ট দন্ড প্রদানের বিধানের প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিলে সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও সামরিক পর্যায়ে পরিচালিত অনুমোদিত বিভিন্ন নার্সিং ও মিডওয়াইফারি প্রতিষ্ঠানের নাম তফসিলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।
পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ৪ সপ্তাহের মধ্যে সংসদে রিপোর্ট প্রদানের জন্য বিলটি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে।
এর আগে বিলটি উত্থাপনের পর্যায়ে জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম আপত্তি আনলে তা কন্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়।


মন্তব্য