kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


যুক্তরাষ্ট্রে ফের বাংলাদেশি খুন

মালয়েশিয়ায় পোড়া লাশ উদ্ধার

নিউ ইয়র্ক প্রতিনিধি   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৩:০৯



যুক্তরাষ্ট্রে ফের বাংলাদেশি খুন

যুক্তরাষ্ট্রে ডাকাতের গুলিতে এক বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন। তাঁর নাম মোহাম্মদ আবুল কালাম।

ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের লস অ্যাঞ্জেলেসের নর্থ হলিউডেতে হামলার শিকার হন তিনি। স্থানীয় সময় রবিবার রাত ১২টার (বাংলাদেশ সময় সোমবার সকাল ১০টা) দিকে শেরম্যান ওয়েতে লিকোয়ার মার্ট নামের একটি সুপারশপে ডাকাতরা ওই হামলা চালায়। নিউ ইয়র্কে দুর্বৃত্তের হামলায় তিন বাংলাদেশি খুনের রেশ না কাটতেই এ ঘটনা ঘটল।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সুপারশপের দায়িত্বপ্রাপ্ত আবুল কালাম যখন দোকানটি বন্ধ করছিলেন তখন দুজন ডাকাতির উদ্দেশ্যে সেখানে ঢোকে। তাঁর কাছে টাকা দাবি করে তারা। আবুল কালাম আপত্তি জানালে তখনই তাঁকে গুলি করে হত্যা করা হয়। লস অ্যাঞ্জেলেস পুলিশ ভিডিও ফুটেজ দেখে সন্ত্রাসীদের ধরার চেষ্টা করছে।

আবুল কালামের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার তিতাস থানার বাতাকান্দি গ্রামে। তাঁর বাবা প্রয়াত আলহাজ মোহাম্মদ ছাদিরুজ্জামান। যুক্তরাষ্ট্রে স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়েকে নিয়ে বাস করতেন আবুল কালাম। তাঁর বড় দুই মেয়ে ঢাকায় থাকেন।

স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে বিজ্ঞাপনী সংস্থা বিটপীতে যোগ দেন তরুণ আবুল কালাম। তিনি সেখানে কাজের পাশাপাশি বাটাসহ একাধিক ব্র্যান্ডের মডেল হয়েছিলেন। একজন ফুটবলার হিসেবেও বন্ধুদের কাছে তিনি জনপ্রিয় ছিলেন। মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ শিবিরেও যোগ দিয়েছিলেন তিন। বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বঙ্গবন্ধুর গাড়ির ঠিক সামনের ছবিতে যে তরুণকে (ন্যাড়া মাথার) দেখা যায় তিনিই আবুল কালাম।

প্রসঙ্গত, গত ৩১ আগস্ট নিউ ইয়র্কের কুইন্সের জ্যামাইকা হিলস এলাকায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে খুন হন বাংলাদেশি নাগরিক নাজমা খানম (৬০)। তাঁর বাড়ি শরীয়তপুরে। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার যুবক পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ছিনতাইয়ে ব্যর্থ হয়ে সে নাজমাকে খুন করে।

এর আগে ১৩ আগস্ট কুইন্সের ওজন পার্ক এলাকায় বাংলাদেশি ইমাম মাওলানা আলাউদ্দিন আখঞ্জি (৫৫) ও তাঁর সঙ্গী তারা মিয়া (৬৪) দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন।

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশির পোড়া লাশ : মালয়েশিয়ার লরং পানতাই কেলানাং এলাকা থেকে এক বাংলাদেশির পোড়া লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বারনামার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, সৈয়দ আলী নামের চল্লিশোর্ধ্ব ওই ব্যক্তিকে অন্য কোথাও খুন করে সৈকতের কাছে নিয়ে আগুনে পোড়ানো হয়ে থাকতে পারে বলে সন্দেহ করছেন তদন্তকারীরা।

কুয়ালা লাংগাট জেলা পুলিশের প্রধান জাইলান তাসির জানান, রবিবার মধ্যরাতে আগুন দেখে স্থানীয় বাসিন্দারা এগিয়ে যাওয়ার পর ওই ব্যক্তির পোড়া মৃতদেহ উপুর হয়ে পড়ে থাকতে দেখে। নিহতের শরীরের বেশির ভাগ অংশ পুড়ে গেছে এবং তাঁর পিঠ ও কপালে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। তিনি বলেন, ‘অন্য কোথাও খুন করে প্রমাণ নষ্ট করার জন্য এখানে এনে লাশ পুড়িয়ে ফেলার চেষ্টার সম্ভাবনা আমরা উড়িয়ে দিচ্ছি না। ’

জাইলান তাসির জানান, নিহতের দুই হাতের আঙুলে একটি করে আংটি ছিল, ওয়ালেটে ছিল পাসপোর্ট (নম্বর : BC0214534)। আর বুক পকেটে ১০ ও ২০ রিংগিতের নোট পাওয়া গেছে। পাশেই পড়ে ছিল জ্বালানি তেলের বোতলের মুখ। এ ঘটনায় একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে।


মন্তব্য