kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'নিবেদিতপ্রাণ শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:১৪



'নিবেদিতপ্রাণ শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে'

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, দেশের ও শিক্ষার জন্য নিবেদিতপ্রাণ ব্যক্তিদের নিয়োগের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দিতে হবে।
শিক্ষামন্ত্রী আজ মিলিটারী ইন্সটিটিউট অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি)তে ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি বিষয়ক ৩ দিনব্যাপী সম্মেলনের উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

 
‘ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি (আইসিইইআইসিটি- ২০১৬)’ শীর্ষক এই সম্মেলন এমআইএসটি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়।  
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রয়োজনীয় তত্ত্ব-উপাত্ত সংগ্রহ ও যাচাই-বাছাই করে শিক্ষক নিয়োগ দিলে নবনিযুক্ত শিক্ষকরা শিক্ষাক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবেন।
নাহিদ বলেন, “এখন থেকে জ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পন্ন জনসম্পদ বিদেশ থেকে আমদানী নয়, এদেশের মানবসম্পদ বিদেশে রফতানি করা হবে।  
“আন্তর্জাতিক পরিসরে বাংলাদেশের শিক্ষার্থীদের স্থান করে নিতে হবে- এ কথা উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “আমাদের প্রধান লক্ষ্য নতুন প্রজন্মকে তথ্য প্রযুক্তি চর্চা ও প্রয়োগ আয়ত্ব করার উপর নজরদারি করা। যাতে তারা ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে আরও সক্ষমতার দিকে পৌঁছে দিতে পারে।
“ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অন ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড ইনফরমেশন এন্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজী (আইসিইইআইসিটি- ২০১৬)” শীর্ষক এই সম্মেলন এমএসটিআই ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হচ্ছে।  
সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম ও বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোঃ মাহফুজুর রহমান । এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন এমএসটিআই এর কম্যান্ডেন্ট’র (ভারপ্রাপ্ত) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সালজার হোসেন, আইইইই কমসোক সভাপতি (বাংলাদেশ) প্রফেসর ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার এবং এমআইএসটি এর ইসিই ফ্যাকাল্টির ডিন ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ সোহাইল হোসাইন।
এ সম্মেলনে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার নেটওয়ার্ক এ্যান্ড সিকিউরিটি কমিউনিকেশন, ডিজিটাল সিগনাল অ্যান্ড ইমেজ প্রসেসিং, অপটো- ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড ইমেজ প্রসেসিং, অপটো ইলেকট্রনিক্স এ্যান্ড ফটোনিস্কসহ ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ক সাম্প্রতিক গবেষণা, প্রবন্ধ উপস্থাপন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।  
সম্মেলনে জানানো হয়, সরকারি ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, শিল্প-উদ্যোক্তা, প্রকৌশলী, শিক্ষার্থী এবং গবেষকদের সমন্বয়ে একটি সার্বজনীন ক্ষেত্র তৈরী হবে যা ইলেকটিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নব ও টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমে উন্নয়নের নতুন দ্বার উন্মোচন করবে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে বিশেষ অবদান রাখবে।  
আন্তর্জাতিক এ সম্মেলনে বাংলাদেশসহ আমেরিকা, যুক্তরাজ্য, কানাডা, মালয়েশিয়া, জার্মানি এবং নেপালের বিশেষজ্ঞ ও গবেষকগণ অংশগ্রহণ করছেন।
এর পরে শিক্ষামন্ত্রী সম্মেলন উপলক্ষে আয়োজিত প্রদশর্নীর উদ্বোধন করেন।


মন্তব্য