kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারি ও বেসরকারি সমন্বিত উদ্যোগ জরুরি

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৫২



এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারি ও বেসরকারি সমন্বিত উদ্যোগ জরুরি

আজ এক কর্মশালায় বক্তারা বলেছেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে সরকারি ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাকে (জিও-এনজিও) সমন্বিত কর্মসূচির মাধ্যমে কাজ করে যেতে হবে।  
রাজধানীর মহাখালীস্থ ব্রাক সেন্টারে এনজিও বিষয়ক ব্যুরো ও ব্রাকের যৌথ উদ্যোগে ‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও এর কর্মকান্ড ফলপ্রসূ করার জন্য সমন্বয়’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কর্মশালায় তারা এ কথা বলেন।


বক্তারা বলেন, ‘২০১৫ সালে এমডিজির ১৭ টি লক্ষ্য অর্জিত হয়েছে। এটা নিয়ে নানা বিতর্ক ছিল। তারপরও সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগের কারণে তা পূরণে কাজ হয়েছে। এবার এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের কাজ শুরু হয়েছে।  
এনজিও ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণ কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে এর উদ্বোধন করেন মন্ত্রি পরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।
এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের গভর্নেন্স ইনোভেশন ইউনিটের মহাপরিচালক মো. আব্দুল হালিম, বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট এর যুগ্ম পরিচালক মাসুদ রানা, ব্র্যাকের গবেষণা ও মূল্যায়ন বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক ড. আব্দুল বায়েস, ব্র্যাকের ইমপ্যাক্ট অ্যাসেসমেন্ট ইউনিটের সমন্বয়ক এন্ড্রু জেনকিনসপ্রমুখ।
মোহাম্মদ শফিউল আলম বলেন, আমলাতান্ত্রিক জাটিলতার কারণে সদিচ্ছা থাকলেও সরকার দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এক্ষেত্রে মাঠ পর্যায়ে বেসরকারি সংস্থাগুলো দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতে পারে । এসডিজি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে এখন জরুরিভাবে জিও এবং এনজিওকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।
আসাদুল ইসলাম বলেন, দারিদ্য্র বিমোচন ,শিক্ষা ,নারী উন্নয়ন, স্বাস্থ্য, প্রাথমিক শিক্ষার মতো গতানুগতিক কর্মসূচি নিয়ে কাজ করলে হবে না। বরং সমাজ পরিবর্তনের সাথে সাথে উদ্ভাবনী ও সৃজনশীল ধারণা নিয়ে অগ্রসর হতে হবে।
‘৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন ও টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন’ বিষয়ক (এসডিজি) প্রবন্ধে ড. আব্দুল বায়েস বিভিন্ন পঞ্চবার্ষিকীর পরিকল্পনার তুলনামূলক বিশ্লেষণ তুলে ধরে বলেন, লক্ষ্য করলে দেখা যাবে- প্রথম থেকে শুরু করে ৬ষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পর্যন্ত আমরা প্রবৃদ্ধির চূড়ান্ত লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে পারিনি। কিন্তু আবার এটাও সত্য, প্রতিটি পরিকল্পনায় আমরা আগের চেয়ে প্রবৃদ্ধিতে এগুচ্ছি।  
ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক ডা. মুহাম্মাাদ মুসা অর্থনৈতিক ও সামাজিক বৈষম্য দূর করতে সরকারি বেসরকারি পর্যায়ে সমন্বিত কর্মসূচি গ্রহণ করার কথা উল্লেখ করে বলেন, বাংলাদেশের এনজিওগুলো বছরে ৫ হাজার কোটি টাকা অনুদান পায়। এটা জাতীয় রাজস্বের প্রায় ১২ থেকে ১৫ ভাগ। এই অর্থ সঠিকভাবে ব্যবহার করতে এনজিওগুলোকে উদ্যোগী হতে হবে।
বর্তমানে দেশে ২৫০০ এনজিও রয়েছে। দেশের ৪৯০ টি উপজেলায় তারা প্রত্যন্ত অঞ্চলসহ বিভিন্ন স্থানে নানা প্রকল্পে কাজ করছে। এসব এনজিওতে বিভিন্ন পদে ৫ লাখ মানুষ কর্মরত আছে।
কর্মশালা সূত্রে জানা যায়, প্রশিক্ষণ কর্মশালায় মাঠ পর্যায়ে বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা (এনজিও)’র উন্নয়ন প্রকল্প কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সমন্বয় ও যথাযথ তদারকির লক্ষ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক,উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী কমিশনারদের নিয়ে এ ধরণের উদ্যোগ প্রথম পর্যায়ে ঢাকা বিভাগের ৬টি জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও ৩৪ জন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এবং ৬ জন সহকারি কমিশনারসহ মোট ৪৬ জন সরকারি কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিরা অংশ নেন। পরে পর্যায়ক্রমে দেশের ৪৬ জেলার মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সম্পৃক্ত করে এ ধরনের ওরিয়েন্টশনের আয়োজন করা হবে।


মন্তব্য