kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ট্রেনে ঢাকায় ফেরা যাত্রীর চাপ

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৪:৩১



ট্রেনে ঢাকায় ফেরা যাত্রীর চাপ

ঈদের ছুটি শেষ। ইতিমধ্যে খুলেছে ব্যাংক, বিমা, অফিস, আদালত।

তাই ঈদের আমেজ শেষ না হতেই বাড়ছে কর্মজীবী মানুষের চাপ। রেলস্টেশনে বাড়ছে ঢাকা ফেরা মানুষের ভিড়। আজ শনিবার সকালে কমলাপুর স্টেশনে দেখা গেছে ঢাকা ফেরা মানুষের ভিড়। রাজধানীর বাইরের বিভিন্ন গন্তব্য থেকে ঢাকামুখী প্রতিটি ট্রেনই ফিরেছে যাত্রী ভর্তি হয়ে। বসে থাকা যাত্রীদের পাশাপাশি অনেকেই এসেছেন দাঁড়িয়ে। যাত্রীরা জানিয়েছেন, ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় না হওয়ায় সহজেই রাজধানীতে আসতে পেরেছেন তারা। ট্রেন পৌঁছাতে কিছুটা বিলম্ব হলেও প্রিয়জনের সঙ্গে ঈদ উদযাপন শেষে রাজধানীতে ভালোভাবে ফিরে আসতে পারায় খুশি তারা।

শনিবার ভোর থেকেই ট্রেনের ভেতরে-বাইরে, দাঁড়িয়ে-বসে ঢাকায় ফিরতে দেখা গেছে যাত্রীদের। ভোর ৫টা থেকে ১১টা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ১৩টি ট্রেন ঢাকায় পৌঁছেছে। এর মধ্যে প্রতিটি ট্রেনই ২০ থেকে ৩০ মিনিট দেরি করেছে। যদিও ঈদের সময় ২০-৩০ মিনিট বিলম্বকে স্বাভাবিক মনে করছে রেল কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া এ সময়ে ঢাকা ছেড়ে গেছে ১০টি ট্রেন।
 
কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ঈদের পঞ্চম দিনও ট্রেনের শিডিউলে কোনো বিপর্যয় হয়নি। কয়েকটি ট্রেন বিলম্বে ছাড়ার কারণে ২০ মিনিট বা আধা ঘণ্টা দেরিতে স্টেশনে পৌঁছাচ্ছে। আর ঈদের সময় অতিরিক্ত যাত্রী থাকায় মাল ওঠানামাসহ বিভিন্ন কারণে কিছুটা বিলম্ব হয়, এটা স্বাভাবিক। তিনি বলেন, আর যাত্রীদের সুবিধার্থে সব ট্রেনে অতিরিক্ত বগি লাগানো হয়েছে। ফিরতি যাত্রীদের জন্য বিশেষ ট্রেন সার্ভিস পরিচালনা করছে বাংলাদেশ রেলওয়ে।

এদিকে বিভিন্ন ট্রেনে নতুন বগি সংযোজিত হওয়ার পর এবার ঈদযাত্রা নির্বিঘ্ন হচ্ছে বলে দাবি করছে রেলওয়ের কর্মকর্তারা। তারা জানিয়েছেন, এবার মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস ও সোনার বাংলা নামের দুটি ট্রেন নতুন করে যুক্ত হয়েছে। পাশাপাশি চিত্রা, ধূমকেতু, সিল্কসিটিসহ আরো কয়েকটি কোচে বগি লাগানো হয়েছে। যাত্রীরা ভোগান্তি ছাড়াই ভ্রমণ করতে পারছেন।

 


মন্তব্য