kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ ডিসেম্বর ২০১৬। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


'ওজোন স্তর রক্ষায় বাংলাদেশের জনগণ সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে'

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৯:১৮



'ওজোন স্তর রক্ষায় বাংলাদেশের জনগণ সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে'

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের জনগণ ওজোনস্তর রক্ষায় সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের জনগণ ওজোনস্তর রক্ষায় সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে এবং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় উষ্ণায়ন বৃদ্ধি করে না এমন সামগ্রী ব্যবহার করবে।

আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস পালন এ ব্যাপারে জনমত সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা রাখবে।
আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী আজ বৃহষ্পতিবার দেয়া এক বাণীতে এই আশা প্রকাশ করেন।  
জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি (ইউএনইপি) এ বছরের আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস উপলক্ষে প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করেছে ‘বিশ্ববাসীর একই সুর-ওজোন ক্ষয় করব দূর, সুরক্ষা হবে জলবায়ুর’।  
শেখ হাসিনা বলেন, ভিয়েনা কনভেনশন ও মন্ট্রিল প্রটোকল গৃহীত হওয়ার পর বিশ্ববাসীর ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় বৈশ্বিক পরিবেশের ক্ষতিকর প্রভাব এড়ানো সম্ভব হয়েছে। বাংলাদেশও এ বৈশ্বিক কর্মসূচির গর্বিত অংশীদার।  
বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ক্ষয়িষ্ণু ওজোনস্তর রক্ষায় ১৯৮৫ সালে গৃহীত ভিয়েনা কনভেনশন এবং পরবর্তীতে ১৯৮৭ সালে গৃহীত মন্ট্রিল প্রটোকল পৃথিবীর প্রাণম-ল রক্ষায় যুগান্তকারী পদক্ষেপ। মন্ট্রিল প্রটোকল শুধুমাত্র ওজোনস্তর রক্ষার কাজই করছে না বরং জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায়ও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে।  
তিনি বলেন, বিশ্ব নেতৃবৃন্দ সিএফসির পরিবর্তে হাইড্রোফ্লোরোকার্বন ব্যবহার অনুমোদন করে, যা বৈশ্বিক উষ্ণায়নের ক্ষেত্রে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন রাসায়নিক। এর ব্যবহার মন্ট্রিল প্রটোকলের আওতায় পৃথিবীর সকল দেশ ক্রমান্বয়ে কমিয়ে আনার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।  
শেখ হাসিনা বলেন, ওজোন স্তর রক্ষায় মন্ট্রিল প্রটোকল অতীতে যে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছে, ভবিষ্যতে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায়ও একইভাবে ভূমিকা রাখবে। সকলের সম্মিলিত প্রয়াসে অচিরেই বৈশ্বিক উষ্ণায়ন হ্রাসে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করা সম্ভব হবে।
বাণীতে প্রধানমন্ত্রী বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস পালন হচ্ছে জেনে আনন্দ প্রকাশ এবং আন্তর্জাতিক ওজোন দিবস-২০১৬ এ গৃহীত সকল কর্মসূচির সফলতা কামনা করেন।


মন্তব্য