kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


কাল ওজোন দিবস

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:০১



কাল ওজোন দিবস

আগামীকাল আর্ন্তজাতিক ওজোন দিবস। ওজোনস্তর রক্ষা কল্পে ও ওজোন স্তর ক্ষয়কারী দ্রব্যের বিকল্প ব্যাবহার জনপ্রিয় করার লক্ষ্যে এবং জনসাধারণের মধ্যে ওজোন স্তরের গুরুত্ব ও সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ১৯৯৪ সনের ১৯ ডিসেম্বর গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতিবছরের ১৬ সেপ্টেম্বর দিবসটি পালন করা হয় ।


বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশেও বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যদিয়ে দিবসটি পালিত হবে। পরিবেশ অধিদপ্তর এ উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহন করেছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং পরিবেশ ও বনমন্ত্রী ও উপমন্ত্রী দিবসটি উপলক্ষে পৃথক বাণী প্রদান করেছেন।  
এ ছাড়াও দিবসটি উপলক্ষে একটি প্রাচীরপত্র ও বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে ক্রোড়পত্র প্রকাশ এবং আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর বিকাল ৩টা ৩০ মিনিটে বন ভবনের হৈমন্তি মিলনায়তনে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হবে।
দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘বিশ্ববাসীর একই সুর- ওজোন ক্ষয় করব দূর, সুরক্ষা হবে জলবায়ুর’এবং মন্ট্রিল প্রটোকল বাস্তবায়নে এইচএফসি হ্রাস , বৈশ্বিক উষ্ণয়ন রোধের কার্যকর প্রয়াস । ’
পৃথিবীর বায়ুমন্ডলের উপরিভাগে স্ট্রাটোষ্কিয়ারে অবস্থিত ওজোনস্তর বা সূর্যের ক্ষতিকর অতি‡বগুনী রশ্মি ধরে রাখছে তা মানুষের সৃষ্ট কিছু ক্ষতিকর গ্যাস/দ্রব্য যেমন সিএফসি, হ্যালন, কার্বন টেট্রাক্লোরাইড, মিথাইল ব্রোমাইড ইত্যাদি দ্বারা ক্রমাগত ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে চলেছে।
বিজ্ঞানীদের মতে, পৃথিবীতে অতি বেগুনী রশ্মির আপতন বৃদ্ধির ফলে মানব স্বাস্থ্যসহ প্রাণীজগত ও উদ্ভিদজগতের ব্যাপক ক্ষতি সাধিত হবে। বেড়ে যাবে ক্যান্সার , হ্রাস পাবেশস্যের ফলন, ক্ষাতগ্রস্ত হবে সামুদ্রিক প্রাণসম্পদ।
এই পরিস্থিতি মোকাবেলায় , জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচি ও বিঞ্জানীদের সময়োচিত তৎপরতায় ১৯৮৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর কানাডার মন্ট্রিলে ওজোরস্তর রক্ষায় একটি আর্ন্তজাতিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় যা ‘মন্ট্রিল প্রটোকল ’ নামে খ্যাত। এই প্রটোকলের আওতায় একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ওজোনস্তর ক্ষয়কারী দ্রব্যসমুহের ব্যাবহার নিষিদ্ধ করা হবে।


মন্তব্য