kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নিহত জঙ্গির নাম জামশেদ, পুলিশের ধারণা আত্মহত‌্যা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৪:৫৯



নিহত জঙ্গির নাম জামশেদ, পুলিশের ধারণা আত্মহত‌্যা

ঢাকার আজিমপুরে অভিযানের সময় নিহত সন্দেহভাজন যুবকের আঙুলের ছাপের সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্রের তথ‌্যভাণ্ডার মিলিয়ে তার আসল পরিচয় জানতে পেরেছে পুলিশ। ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (গণমাধ‌্যম) মাসুদুর রহমান আজ রবিবার জানান, ওই যুবকের প্রকৃত নাম জামশেদ হোসেন; বাড়ি রাজশাহীর বোয়ালিয়া উপজেলার মেহেরচণ্ডী গ্রামে।

পুলিশ বলছে, নব‌্য জেএমবির এই সদস‌্যের সাংগঠনিক নাম আবদুল করিম। তিনি গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলাকারীদের সহযোগী।

শনিবার সন্ধ্যায় আজিমপুর বিজিবি সদর দপ্তরের ২ নম্বর গেইটের ওই বাসায় পুলিশের অভিযানের সময় জামশেদ ওরফে আবদুল করিমের লাশ পাওয়া যায়। আহত হন সন্দেহভাজন তিন নারী জঙ্গি ও পাঁচ পুলিশ সদস‌্য। রাতে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, নিহত সন্দেহভাজন জঙ্গির গলা কাটা অবস্থায় পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, তিনি আত্মহত‌্যা করেছেন।

আটক তিন নারীর মধ্যে একজন পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। বাকি দুজনও আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে একজন যুগ্ম কমিশনার পর্যায়ের কর্মকর্তা সাংবাদিকদের জানান। অভিযানে ওই বাসা থেকে একটি ছেলেসহ তিন শিশুকে উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাদের মধ্যে সবার বড় ছেলেটির বয়স ১২ থেকে ১৩ বছর। আর দুটি মেয়ের মধ্যে একজনের বয়স ৯ থেকে ১০ বছর, অন্যটির বয়স বছরখানেক।

উপকমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, তিন শিশুর মধ‌্যে ছেলেটি জামশেদের সন্তান বলে তারা ধারণা করছেন। পুলিশ মহাপরিদর্শক এ কে এম শহীদুল হক রাতে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, নিহত যুবকের সঙ্গে গুলশান হামলায় সন্দেহভাজন একজনের চেহারার মিল পেয়েছেন তারা। আর সন্দেহভাজন তিন নারী জঙ্গির মধ‌্যে একজন সপ্তাহখানেক আগে রূপনগরে নিহত জঙ্গি জাহিদুল ইসলামের স্ত্রী জেবুন্নেসা শিলা বলে ধারণা করছে পুলিশ। উদ্ধার হওয়া দুটি মেয়ে শিশু ওই দম্পতিরই সন্তান বলে পুলিশ মনে করছে।


মন্তব্য