kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দেশে প্রতিদিন আত্মহত্যার সংখ্যা ২৮

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০৯:৫৯



দেশে প্রতিদিন আত্মহত্যার সংখ্যা ২৮

মাস কয়েক আগের ঘটনা। একজন মডেল আত্মহত্যার তিন থেকে চার ঘণ্টা আগে ফেসবুকে ঘোষণা দেন, তিনি আত্মহত্যা করতে যাচ্ছেন।

কিন্তু এই সময়ের মধ্যেও তাকে আত্মহত্যার হাত থেকে বাঁচানো যায়নি। বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, অনেক দেশেই আত্মহত্যারোধে হটলাইন চালু আছে। আমাদের দেশেও এমন হটলাইন থাকা দরকার। তবে কেবল হটলাইন থাকলেই চলবে না। টেলিফোনের অপরপ্রান্তে যিনি থাকবেন, তিনি এ বিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কিনা, সেটাও নিশ্চিত করতে হবে। কারণ, সাধারণ কারও পক্ষে আত্মহত্যাপ্রবণ কোনো ব্যক্তিকে বোঝানো সহজ নয়। আজ আন্তর্জাতিক আত্মহত্যা প্রতিরোধ দিবস।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও পুলিশ সদর দপ্তরের হিসাব অনুযায়ী, দেশে প্রতিদিন গড়ে ২৮ জন আত্মহত্যা করেন। সে হিসাবে প্রতিবছর দেশে প্রায় ১০ হাজার মানুষ আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার জরিপ বলছে, দেশে আত্মহত্যার প্রবণতা কমেছে। তবে পুলিশের প্রতিবেদন অনুযায়ী, সম্প্রতি আত্মহত্যার প্রবণতা বেড়েছে। বাংলাদেশসহ ভারতীয় উপমহাদেশে নারী ও তরুণ-তরুণীরা বেশি আত্মহত্যা করছেন বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, উপমহাদেশে প্রায় ৬৫ লাখ মানুষ আত্মহত্যার ঝুঁকিতে রয়েছেন।

জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউট ও পুলিশ সদর দপ্তরের পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, বাংলাদেশে ২০১৪ সালে ১১ হাজার ৯৪ জন, ২০১৩ সালে ১০ হাজার ১২৯ জন, ২০১২ সলে ১০ হাজার ১৬৭ জন, ২০১১ সালে ১০ হাজার ৩২৩ জন এবং ২০১০ সালে ১০ হাজার ৭৮৮ জন আত্মহত্যা করেছেন। অপরদিকে, বিশ্বে প্রতিবছর আত্মহত্যা করেন ১০ লাখেরও বেশি মানুষ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পারিবারিক নির্যাতন, কলহ, শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন, পরীক্ষা ও প্রেমে ব্যর্থতা, দারিদ্র্য, বেকারত্ব, প্রাত্যহিক জীবনের অস্থিরতা, নৈতিক অবক্ষয়, মাদক ইত্যাদি কারণে মানুষ আত্মহত্যার পথ বেছে নিচ্ছেন।

বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদন অনুযায়ী, আত্মহত্যা প্রবণতার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বে দশম। বাংলাদেশে গত সাত বছরে ৭৩ হাজার ৩৮৯ জন আত্মহত্যা করেছেন। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও বাংলাদেশ পুলিশ সদর দপ্তর অনুযায়ী, আত্মহত্যাকারীদের বেশির ভাগেরই বয়স ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে। জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের জরিপ অনুযায়ী, চুয়াডাঙ্গা, ঝিনাইদহসহ দেশের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে আত্মহত্যার প্রবণতা বেশি।

 


মন্তব্য