kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মহাসড়কে গরুর হাট বসলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:১৮



মহাসড়কে গরুর হাট বসলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ

পবিত্র ঈদুল-আযহা উপলক্ষে কোনভাবেই যেন গরুর হাট বসতে না পারে সে বিষয়ে মন্ত্রণালয়কে সতর্ক করেছে সংসদীয় কমিটি। মহাসড়কের কোথাও গরুর হাট বসলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়েছে।

একই সঙ্গে ঈদে মানুষের যাতায়াত নিশ্চিত করতে মহাসড়ককে যানজটমুক্ত রাখতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আজ বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।  

কমিটির সভাপতি মো. একাব্বর হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটি সদস্য রেজওয়ান আহম্মদ তৌফিক, নাজমুল হক প্রধান, লুৎফুন নেছা ও নাজিম উদ্দিন আহমেদ এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে জানানো হয়, পবিত্র ঈদুল-আযহা উপলক্ষে সড়ক পথে যাতায়াতকারী যাত্রী সাধারণের চলাচল নির্বিঘ্ন করা, জনস্বার্থ বিবেচনায় যানজট নিরাসনে জাতীয় ও আঞ্চলিক মহাসড়কে ট্রাক ও লরী চলাচল বন্ধ রাখা হবে। ঈদের আগে ও পরের ৬ দিন ট্রাক ও লরী চলাচল বন্ধ থাকবে। এ বিষয়ে বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

আরো জানানো হয়, যাত্রীদের নিকট থেকে সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ভাড়া আদায় নিশ্চিত ও অতিরিক্ত যাত্রী ও মালামাল বহন বন্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এজন্য মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা, ভিজিলেন্স টিম গঠন ও কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। আর সড়ক মহাসড়কের ১৬টি পয়েন্টে পুলিশ প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য এক হাজার রোভার স্কাউট নিয়োজিত রাখা হয়েছে।

বৈঠকে আলোচনা শেষে ঈদে ঘরমুখো মানুষের নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত ও মহসড়কগুলো যানজটমুক্ত রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। এছাড়া ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ হয়ে গৌরিপুর পর্যন্ত বিআরটিসির বাস চলাচলের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ দেওয়া হয়।

বৈঠক শেষে কমিটির সদস্য রেজওয়ান আহাম্মদ তৌফিক সাংবাদিকদের জানান, ঈদের সময় সাধারণ মানুষের বাড়ি যাওয়া নির্বিঘ্ন করতে মন্ত্রণালয় তাদের পদক্ষেপগুলো কমিটিকে জানিয়েছে। কমিটি এ বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য বলেছে।


মন্তব্য