kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


পুরনো দেনা পরিশোধ না করলে নতুন ঋণ নয়

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১১:৪৩



পুরনো দেনা পরিশোধ না করলে নতুন ঋণ নয়

গত কোরবানির ঈদে পশুর চামড়া কিনতে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলো ব্যবসায়ীদের যে পরিমাণ ঋণ দিয়েছে, তার সিংহভাগই আদায় হয়নি। এমনকী আগের বছরগুলোতে নেওয়া ঋণের টাকাও ফেরত পায়নি ব্যাংকগুলো।

সে কারণে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর এবারের সিদ্ধান্ত, গত বছরের নেওয়া ঋণের কমপক্ষে ৩৫ শতাংশ পরিশোধ না করলে, এবার নতুন ঋণ নিতে পারবেন না চামড়া ব্যবসায়ীরা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, ঈদুল আজহা উপলক্ষে ব্যাংকগুলো ২০১৫ সালে ৬৬৪ কোটি, ২০১৪ সালে ৫ শ কোটি এবং ২০১৩ সালে ৪৬১ কোটি টাকা ঋণ দিয়েছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউটের (বিআইবিএম) গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আবলোপন করা এসব ঋণ আর কখনোই আদায় হবে না। চামড়া খাতের ঋণের বড় অংশই অন্য খাতে স্থানান্তর হয়ে যাচ্ছে। সে কারণে এই খাতে খেলাপি ঋণের মাত্রাও বেশি। এদিকে, বিশ্ব বাজারে চামড়ার দরপতন, ব্যবসায় মন্দা, ট্যানারি স্থানান্তরসহ নানা সংকটের কথা বলে খেলাপি ঋণ পুনঃতফসিলের দাবি জানিয়েছেন চামড়া ব্যবসায়ীরা।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ ট্যানারি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারে মন্দার কারণে বাংলাদেশেও চামড়ার বাজারে মন্দাভাব দেখা দিয়েছে। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে সাভারে ট্যানারি স্থানান্তরে বড় অংকের অর্থ ব্যয়। এ ছাড়া গত বছরের সংগৃহীত অনেক চামড়া এখনও বিক্রি হয়নি। এসব কারণে অনেকেই ব্যাংক থেকে নেওয়া ঋণ পরিশোধ করতে পারছি না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যমতে, গত বছর সোনালী ব্যাংক ২০১ কোটি টাকা ঋণ বিতরণ করলেও এর মধ্যে আদায় হয়েছে, মাত্র ৩৯ লাখ টাকা। এ ছাড়া খেলাপি হয়ে গেছে, ৪৫ কোটি ২৯ লাখ টাকা। কিস্তি পরিশোধ না করায় বকেয়া পড়ে আছে, ১২৬ কোটি টাকা। গত বছর তিনটি প্রতিষ্ঠানকে প্রায় ১৫০ কোটি টাকা ঋণ দেয় ব্যাংকটির বঙ্গবন্ধু এভিনিউ করপোরেট শাখা। এবারও ওই তিনটি প্রতিষ্ঠানই ঋণের জন্য আবেদন করেছে। সব মিলিয়ে ওই তিনটি প্রতিষ্ঠান ১৭০ কোটি টাকা ঋণ চেয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত বেসিক ব্যাংক চামড়াশিল্পে গত বছরের মতোই এবারও ১০ কোটি টাকা ঋণ দিতে পারে। এর বাইরে সরকারি মালিকানাধীন কয়েকটি বিশেষায়িত ও বেসরকারি ব্যাংকও চামড়া কিনতে ঋণ দেবে। সরকারি খাতের বিশেষায়িত ব্যাংক বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক সর্বোচ্চ ৪ কোটি টাকা ঋণ দিতে পারে। চামড়া কিনতে বেসরকারি খাতের ইউসিবি ২০ কোটি এবং সিটি ব্যাংক ১৮ কোটি টাকা ঋণ দিতে পারে।

 


মন্তব্য