kalerkantho


স্বয়ং বিমানমন্ত্রীর লাগেজ গায়েব! পেলেন দুই ঘন্টা পর!

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২০:১০



স্বয়ং বিমানমন্ত্রীর লাগেজ গায়েব! পেলেন দুই ঘন্টা পর!

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেননের লাগেজ দুই ঘণ্টা আটকে থাকার ঘটনা ঘটেছে। এনিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সংসদীয় কমিটি।

কমিটি ঘটনার সঙ্গে দায়িদের চি‎হ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ দিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জানানো হয়, বুধবার মন্ত্রী তেহরান থেকে সরকারি সফর শেষে দেশে ফিরছিলেন, ফেরার সময় লাগেজ লাপাত্তা হওয়ার ঘটনা ঘটে।

বৈঠকে মন্ত্রী বলেন, “গতকাল আমার লাগেজই দুই ঘণ্টা পরে আসে, আর কি বলবো। ”

এজন্য মন্ত্রী বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষকে (বেবিচক) জোরালো পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বলেন। এর আগে কমিটির সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ আলোচনায় অংশ নিয়ে বলেন, মন্ত্রীরই যদি এই অবস্থা হয়, তাহলে সাধারণ যাত্রীদের কী অবস্থা? এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।

এদিকে বৈঠকে মন্ত্রী চলতি হজ্জ্ব ফ্লাইট ফ্লাইটে সৃষ্ট কিছু জটিলতা নিয়ে বেসরকারি হজ্জ্ব এজেন্সিকে দায়ি করে বলেন, হজ্জ্ব এজেন্সিগুলো শেষ দিকে এসে মক্কা নগরী থেকে অনেক দূরে হাজীদের থাকার জন্য কম টাকায় বাসা ভাড়া করে। ফলে হাজীদের দুর্ভোগে পরতে হয়। এজন্য অনেক হজ্জ্ব ফ্ল্যাইট বাতিল করা হয়ে থাকে। তাই আগামী বছর থেকে এক সঙ্গে বিমান ভাড়ার সব টাকা নিয়ে নেওয়ার প্রস্তাব করেন তিনি।

বৈঠকে আলোচনা শেষে হজ্জ্ব ফ্ল্যাইট বাতিল হওয়ায় জড়িত এজেন্সিদের জরিমান করার সুপারিশ করে কমিটি। এ পর্যন্ত প্রায় ৪০টির মতো হজ্জ ফ্লাইট বাতিল হয়েছে বলে জানানো হয়। আরো জানানো হয়, এবছর ৫১ হাজার হাজীকে হজ্জে পাঠানোর কথা। ইতোমধ্যে ৪৯ হাজার পাঠানো হয়ে গেছে। বাকীদের নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যেই পাঠানো যাবে বলে কমিটিকে আশ্বস্ত করেছে মন্ত্রণালয়।

এছাড়া যে সকল হজ এজেন্সি বুকিং দেওয়া সত্ত্বেও সময় মতো হজ যাত্রী বিমানে প্রেরণ করতে পারেনি তাদেরকে জরিমানা করা এবং ভবিষ্যতে যাতে এর পূর্ণবৃত্তি না ঘটে সে বিষয়ে বাংলাদেশ বিমানকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করা হয়।

সংসদীয় কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খানের সভাপতিত্বে বৈঠকে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ, তানভীর ইমাম, মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী,  মো. আফতাব উদ্দীন সরকার, রওশন আরা মান্নান ও সাবিহা নাহার বেগম এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


মন্তব্য